ইন্ডিয়ান আর্মিতে লেফটেন্যান্ট হলেন হ্যামিল্টনগঞ্জের মেয়ে মণিকা! - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Sunday, 1 May 2022

ইন্ডিয়ান আর্মিতে লেফটেন্যান্ট হলেন হ্যামিল্টনগঞ্জের মেয়ে মণিকা!


মেয়েরা কোনও ক্ষেত্রেই ছেলেদের থেকে কম নয়। আর একথা ফের একবার প্রমাণ করলেন আলিপুরদুয়ার জেলার এক দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ মেয়ে। আলিপুরদুয়ার জেলার হ্যামিল্টনগঞ্জের মেয়ে মণিকা ছেত্রী ভারতীয় সেনাবাহিনীতে লেফটেন্যান্ট হয়েছেন। মণিকা মিলিটারি নার্সিং সেন্টার কর্পসে কমিশনপ্রাপ্ত। মনিকা হ্যামিল্টনগঞ্জের বিবেক নগরের বাসিন্দা। কলেজ অফ নার্সিং কমান্ড হাসপাতাল ইস্টার্ন কমান্ড কলকাতায় চার বছরের কঠোর প্রশিক্ষণের পরে, মনিকার প্রথম পোস্টিং কলেজ অফ নার্সিং কমান্ড হাসপাতাল ইস্টার্ন কমান্ড কলকাতায় করা হয়েছে। 


মণিকার এই কৃতিত্বে পরিবারের পাশাপাশি গোটা এলাকায় আনন্দের জোয়ার বইছে। দুই বোনের মধ্যে বড় মনিকা, তার বাবার মতো দেশের সেবা করতে চেয়েছিলেন। কঠোর পরিশ্রমের পর তাঁর এই ইচ্ছা সম্পন্ন হয়েছে। মণিকার বাবা লক্ষ্মণ ছেত্রীও ভারতীয় সেনাবাহিনীতে সুবেদার পদে কর্মরত।


মণিকার মা মীরা ছেত্রী অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের একজন কর্মী। মণিকার ছোট বোন মেহুল ছেত্রী দার্জিলিং কলেজে বিজ্ঞান নিয়ে প্রথম বর্ষে পড়ছে। জানা গেছে, হাসিমারার একটি বেসরকারি বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা গ্রহণ করেন মণিকা। এরপর মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষা এয়ার ফোর্স স্কুল থেকে এবং সেন্ট্রাল স্কুল থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা শেষ হয়। তিনি ছোটবেলা থেকেই পড়তে এবং লিখতে খুব ভালো ছিলেন। এরপর 2017 সালে তিনি মিলিটারি নার্সিং সার্ভিস কমিশনের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন এবং একই বছরের 25 সেপ্টেম্বর তিনি মিলিটারি নার্সিং কোর্সে যোগ দেন। মঙ্গলবার, 26 এপ্রিল, মণিকার পাসিং প্যারেডের আয়োজন করে অফ নার্সিং কমান্ড হাসপাতাল, ইস্টার্ন কমান্ড, কলকাতা।


সেই পাসিং প্যারেডে, মণিকাকে তার মা এবং বাবার হাত দিয়ে স্টার লাগিয়ে দেওয়া হয়। জানা গেছে, দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে প্রশিক্ষণ নিতে আসা পরীক্ষার্থীদের মধ্যে শীর্ষ নম্বর পেতে মনিকাকে হোম ট্রান্সফার দেওয়া হয়েছে। তাই কলকাতায় তার পোস্টিং পাওয়ার খবর রয়েছে।

 

এ বিষয়ে মণিকার মা মীরা ছেত্রীকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, 'আমার মেয়ে আজ এই অবস্থান অর্জন করে আমাদের গর্বিত করেছে। এতে আমি খুবই খুশি।' তিনি বলেন, 'আমার দুটি মেয়ে আছে এবং তাদের দুজনকেই নিজের পায়ে দাঁড় করানো আমার স্বপ্ন, যার মধ্যে বড় মেয়ে তার অবস্থান অর্জন করেছে।'

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad