আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়য়ের আচার্য পদেও মুখ্যমন্ত্রী, বিল পাস বিধানসভায় - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Thursday, 23 June 2022

আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়য়ের আচার্য পদেও মুখ্যমন্ত্রী, বিল পাস বিধানসভায়


মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নেতৃত্বাধীন তৃণমূল কংগ্রেস সরকার এবং রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের মধ্যে দ্বন্দ্ব যেন ক্রমশই প্রকোট হয়ে উঠছে। তৃণমূল সরকার আবারও রাজ্যপালের ক্ষমতা খর্ব করতে উদ্যোগী হয়েছে। তাঁকে এখন আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর পদ থেকেও সরিয়ে দেওয়ার পথ প্রশস্ত করেছে রাজ্য। এই বিষয়ে, তৃণমূল কংগ্রেস সরকার বৃহস্পতিবার রাজ্য বিধানসভায় একটি বিল পেশ করে, যা পাস হয়েছে।


 ২৩ জুন, ২০২২ বৃহস্পতিবার রাজ্য বিধানসভায় আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় সংশোধনী আইন-২০২২ বিল পেশ করা হয়, যা সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে বিধানসভায় পাস হয়েছে। এই বিলে আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর ও ভিজিটর ইত্যাদির পরিবর্তনের কথা বলা হয়েছে। এটি পাসের পর, গভর্নর আর এই বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর থাকবেন না। চ্যান্সেলরের ক্ষমতা এখন মুখ্যমন্ত্রীর হাতে থাকবে। যেখানে ভিজিটর ভূমিকায় থাকবেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী।‌ যদিও এই বিল তখনই কার্যকর হবে, যখন রাজ্যপাল এতে স্বাক্ষর করবেন। 


তথ্য অনুযায়ী, বিধানসভায় বিলটি পাশ হয়ে তৃণমূল কংগ্রেস সরকার রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়কে রাজনৈতিক লড়াই চালিয়ে যাওয়ার বার্তা দিয়েছে। এর আগে গত সপ্তাহেও রাজ্যের অন্যান্য বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য একটি বিল পাস করে রাজ্যপালকে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটর পদ ছিনিয়ে নিতে এক ধাপ এগিয়ে যায় রাজ্য।


জুলাই ২০১৯-এ দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে, বিশ্ববিদ্যালয়গুলির কার্যকারিতা সহ বেশ কয়েকটি বিষয় নিয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় এবং রাজ্য সরকার মুখোমুখি হয়েছে। এর আগে, পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা রাজ্যপালের পরিবর্তে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সমস্ত রাজ্য-চালিত বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর হিসাবে একটি বিল পাস করেছিল। এর বিরোধিতা করেছেন বিজেপি বিধায়করাও। তখন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী বলেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী যদি কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্বভারতীর চ্যান্সেলর হতে পারেন, তাহলে রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলির চ্যান্সেলর মুখ্যমন্ত্রী কেন নয়।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad