বাংলা সহিংসতার পেছনে আল-কায়দার হাত! - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Sunday, 12 June 2022

বাংলা সহিংসতার পেছনে আল-কায়দার হাত!



নবী মোহাম্মদকে নিয়ে দুই প্রাক্তন বিজেপি নেতার কথিত আপত্তিকর মন্তব্যের বিরুদ্ধে কলকাতা সংলগ্ন হাওড়ায় মুসলিম সম্প্রদায়ের ক্রমাগত প্রতিবাদ হয়েছে।  গত তিনদিন ধরে বাংলায় অস্থিরতা চলছে।  উলুবেড়িয়া এবং আশেপাশের এলাকায়, হাজার হাজার মানুষ অগ্নিসংযোগ করে রাস্তায় নেমে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়।  এরপর জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জেলায় ১৪৪ ধারা জারি করেন।  গোটা হাওড়া জেলায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখতে হয়েছে।  এখন তার আগুন মুর্শিদাবাদেও পৌঁছায়।  রবিবার মুর্শিদাবাদে মিছিল বের হয় এবং বিক্ষোভ হয়।  গোয়েন্দা রিপোর্ট অনুযায়ী, বাংলায় সহিংসতার পিছনে আল-কায়েদার হাত সামনে এসেছে।  



 গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে, বাংলার বিভিন্ন স্থানে চরমপন্থী দলগুলো সহিংসতা ও অশান্তি ছড়াচ্ছে।  সন্ত্রাসীরা ইতিমধ্যেই দিল্লী, মুম্বাই সহ অনেক বড় শহরে আত্মঘাতী হামলার সতর্কবার্তা দিয়েছে।  এবার তারা সরাসরি বাংলায় অস্থিরতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে।


 

 সূত্রের খবর, আল কায়েদা সারা দেশে অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে।  সেনা ব্যারাকে হামলার হুমকি দিয়েছে আল-কায়েদা।  এই তথ্য ইতিমধ্যেই সামনে এসেছে এবং এর পরিপ্রেক্ষিতে সতর্কতাও জারি করা হয়েছে।  রাজ্য সরকারগুলিকে সতর্ক করেছে গোয়েন্দা বিভাগ।  তিনি একটি লিফলেট খুঁজে পেয়েছেন যাতে আল কায়েদা দিল্লী এবং মুম্বাই সহ বড় শহরগুলিতে হামলার হুমকি দিচ্ছে।  সূত্র বলছে, এই অশান্তিতে আল কায়েদার হাতও জড়িত।  লিফলেটে জামায়াত-ই-কায়েদা-ই-জিহাদ লেখা রয়েছে।  জামাত-উল-মুজাহিদিন বাংলাদেশ থেকে যে সংগঠনটি শুরু করেছে তাতে অনেক রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী দল রয়েছে।  সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে।



এদিকে, বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ বাংলায় মুসলিম সম্প্রদায়ের সহিংস বিক্ষোভ, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের ঘটনা নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে একটি চিঠি লিখেছেন।  রাজ্যের পরিস্থিতি সামাল দিতে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের দাবী জানিয়ে তিনি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে জোরালো আবেদন জানিয়েছেন।  তিনি বলেছেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী,  মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উগ্র মুসলিম সম্প্রদায় ও রোহিঙ্গাদের মাধ্যমে রাজ্যের জনগণের ওপর অত্যাচার চালাচ্ছেন।  


 

 হাওড়া জেলার অঙ্কুরহাটিতে বিক্ষোভের পিছনে রয়েছে জঙ্গি সংগঠন আল কায়েদা।  এই দাবী করে, শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্টে NIA-এর তদন্তের দাবীতে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়েছে।  আদালত তা গ্রহণ করেছে এবং শিগগিরই শুনানি হবে।  পিটিশনকারী দেবদত্ত মাঝি আদালতে তার আবেদনে বলেছেন যে নবী মোহাম্মদ সম্পর্কে প্রাক্তন বিজেপি নেতার মন্তব্যের পরে আল কায়েদা ভারতের চারটি শহরে হামলার সতর্ক করেছিল।  হাওড়ার অঙ্কুরহাটিতে যেভাবে পথ চলার কথা বলা হয়েছে, একই ভাবে বিক্ষোভ হয়েছে।  তাই এনআইএ তদন্ত হওয়া উচিৎ।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad