সম্পর্কের মাধুর্য বজায় রাখতে যে জিনিসগুলো কখনই সহ্য করবেন না - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Thursday, 23 June 2022

সম্পর্কের মাধুর্য বজায় রাখতে যে জিনিসগুলো কখনই সহ্য করবেন না


আপনি যদি সম্পর্ক ঠিক রাখতে আপনার সঙ্গীর ভুল জিনিস সহ্য করেন, তাহলে তা আপনার সম্পর্ক ভাঙার কারণও হয়ে উঠতে পারে।

প্রায়শই লোকেরা জীবনের এমন কিছু জিনিসকে উপেক্ষা করে, যা তাদের সঙ্গীর সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখার জন্য শারীরিক এবং মানসিকভাবে প্রভাবিত করে।  তোমাকে দেখতে অনেক বিশ্রী লাগে, বন্ধুদের সাথে গভীর রাত পর্যন্ত পার্টি করা তোমার অভ্যাস, কোন কাজ ঠিকমতো করতে জানো না - সঙ্গীর কাছ থেকে প্রতিদিনই এমন অনেক মন্তব্য শোনা যায়। হয়তো কতো দম্পতি এমন কিছু কথা শোনার পর সেখানেই ভুলে যায়,  যাতে তাদের জীবনে এর কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া না পড়ে।

কিন্তু আপনি কি কখনও ভেবে দেখেছেন যে, এমন অনেক জিনিস রয়েছে যা আপনার মনকে ভেতর থেকে নাড়া দিতে পারে এবং আপনাকে মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে? বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে, আপনার সম্পর্ক যতই গভীর এবং সত্য হোক না কেন,সম্মান বজায় রাখার জন্য, আপনার কখনই কিছু জিনিস সহ্য করা উচিৎ নয়।  আসুন জেনে নিই  এমনই দশটি বিষয় সম্পর্কে ।

#  প্রভাবশালী সঙ্গী  -

অনেক সময় দেখা যায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে একজন বেশি আধিপত্য বিস্তার করে এবং অকারণে সে অন্যজনকে মানসিকভাবে আঘাত করে ।  কিন্তু সঙ্গীর এই মনোভাব কখনই সহ্য করা উচিৎ নয় ,কারণ এটি কিছুদিনের মধ্যেই দুজনের মধ্যে দূরত্ব বাড়ার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

# অকারণে সন্দেহ করা -

যে কোনও সময় যদি আপনার সঙ্গী আপনাকে অকারণে সন্দেহ করে এবং আপনি তার এই অভ্যাসটি কোনও কারণ ছাড়াই মেনে নেন, তাহলে তা আপনার জন্য ভালো নয়।  কারণ এমনটা করলে আপনাদের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হতে পারে।

# সঙ্গীর জন্য খারাপ শব্দ ব্যবহার -

আপনি যদি আপনার সঙ্গীর ভুল কথা সহ্য করেন তবে এটি আপনার সম্পর্কের মাধুর্য বজায় রাখার পরিবর্তে আপনাদের মধ্যে দূরত্ব বাড়াতে পারে।

# একে অপরকে সম্মান না করা -

যে কোনো সম্পর্কের দৃঢ়তার জন্য একে অপরকে সম্মান করা খুবই জরুরি।  আপনার সঙ্গী যদি কোনোভাবেই আপনাকে সম্মান না করে, যেমন- আপনার কাজকে ছোট মনে করা, বারবার আপনার তৈরি খাবারকে খারাপ বলা বা এমন কোনও বিষয় যা আপনার সম্মানে আঘাত করে, তাকে কখনোই সহ্য করা উচিৎ নয়।

# সম্পর্কের মধ্যে স্পেস না দেওয়া  -

অনেক সময়, সঙ্গীর আপনাকে স্পেস না দেওয়ার মতো কারণও আপনাদের মধ্যে দূরত্ব তৈরি করে। বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হলেও, একটা ব্যক্তিগত স্পেস সবারই দরকার হয় ।

# কমিউনিকেশন গ্যাপ -

আপনার সঙ্গীর সাথে কমিউনিকেশন গ্যাপের মতো বিষয়গুলোকে কখনোই সহ্য করা উচিৎ নয়।  এই কারণে, ভবিষ্যতে অনেক ধরনের ভুল বোঝাবুঝি ঘটতে পারে।

# পাবলিক প্লেসে অপরিচিত হওয়ার ভান করা -

অনেকে তাদের সঙ্গীকে তাদের স্তরের বলে মনে করে না এবং সে সর্বজনীন স্থানে তার থেকে দূরত্ব বজায় রাখে।  এটি করা ভুল। কারণ আপনার সঙ্গীও একই সম্মান পাওয়ার যোগ্য যা আপনি চান।

# ইমোশনাল বোকা বানানো  -

অনেক সময় সঙ্গীর সাথে মিথ্যা বলার পরেও অনেকে তাদের সঙ্গীকে আবেগপ্রবণ করে তোলে এবং তাদের ভুল কথা মেনে নিতে বাধ্য করে।  এমনটা করলে সম্পর্কের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হতে পারে।

# বডি শেমিং -

যেকোনো শারীরিক ঘাটতির জন্য আপনার সঙ্গীকে সর্বদা নিচে দেখানো এবং তাকে বডি শেমিং করতে বাধ্য করা এমন একটি বিষয়, যা ভুলেও সহ্য করা উচিৎ নয়।

# শারীরিকভাবে আহত করা -

আপনার সঙ্গী যদি আপনাকে অকারণে শারীরিকভাবে আঘাত করে তবে ভুলেও তা সহ্য করবেন না । কারণ আপনার উপরে হাত ওঠাবার বা আঘাত করার অধিকার কারও নেই।

বিশেষজ্ঞদের দ্বারা বলা এই জিনিসগুলি কখনই সম্পর্কের ক্ষেত্রে সহ্য করা উচিৎ নয় । কারণ এগুলি কয়েক দিনের জন্য আপনার পক্ষে ভালো প্রমাণিত হতে পারে, তবে দীর্ঘ সময়ের সম্পর্ক বজায় রাখার জন্য কখনই ভালো নয়।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad