ওষুধের তীব্র ঘাটতি! আত্মহত্যার হার বাড়ার আশঙ্কা এই দেশে - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Thursday, 21 July 2022

ওষুধের তীব্র ঘাটতি! আত্মহত্যার হার বাড়ার আশঙ্কা এই দেশে



পাকিস্তানে ইমরান খানের সরকারের পতন এবং শাহবাজ শরিফের ক্ষমতায় আসার পরও দেশের অবস্থার কোনও উন্নতি হয়নি।  নিত্যপণ্যের আকাশছোঁয়া দামের পর দেশের অনেক শহরে ওষুধের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে।  যার কারণে দেশে আত্মহত্যার হার বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে।  পাকিস্তানের মিডিয়া রিপোর্ট করেছে যে যে ওষুধটি নিয়ে শহুরে বাজার সবচেয়ে বেশি লড়াই করছে তা হল লিথিয়াম কার্বনেট, যা মানসিক ব্যাধি এবং সম্পর্কিত রোগের সবচেয়ে কার্যকর ওষুধ।




 পাকিস্তানের মিডিয়া দ্য নিউজ জানিয়েছে, একজন প্রখ্যাত মনোরোগ বিশেষজ্ঞ এবং পাকিস্তান সাইকিয়াট্রিক সোসাইটির (পিপিএস) প্রাক্তন সভাপতি, চিকিৎসার জন্য সবচেয়ে কার্যকর ওষুধ হিসাবে কাজ করে এমন ফর্মুলেশনের কথা উল্লেখ করে বলেছেন, “গত কয়েক মাস ধরে যে কেউ লিথিয়াম কার্বনেট বিক্রি করছে। ব্র্যান্ড বাজারে পাওয়া যায় না।"  এই ওষুধটি মানসিক ব্যাধি এবং এর সাথে সম্পর্কিত রোগের সবচেয়ে কার্যকর ওষুধ হিসাবে বিবেচিত হয়।


 হাইপারঅ্যাকটিভিটি ডিসঅর্ডার (ADHD) চিকিৎসার জন্য মিথাইলফেনিডেট সহ আরও কিছু প্রয়োজনীয় ওষুধ এবং শিশু এবং প্রাপ্তবয়স্কদের মৃগী রোগের জন্য ক্লোনাজেপাম ড্রপস এবং ট্যাবলেটগুলিও বাজারে কোথাও পাওয়া যায় না, রিপোর্টে বলা হয়েছে।


পাকিস্তান ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সেস (পিআইএমএস), শিফা ইন্টারন্যাশনাল হাসপাতাল ইসলামাবাদ এবং মেয়ো হাসপাতাল লাহোরের মনোরোগ বিশেষজ্ঞ, সেইসাথে পেশোয়ারের মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা নিশ্চিত করেছেন যে লোকেরা বাইপোলার ডিসঅর্ডারে আক্রান্ত রোগীদের জন্য লিথিয়াম কার্বনেট খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে। কিন্তু এর কোনও ব্র্যান্ড নেই। বাজারে পাওয়া যায়।



 ইসলামাবাদের আরেক সিনিয়র ফার্মাসিস্ট সালওয়া আহসান বলেছেন, লিথিয়াম কার্বনেট ওষুধ সারা দেশে পাওয়া যাচ্ছে না, কাঁচামালের দাম বেড়ে গেছে এবং তাই কোম্পানিগুলো আর সেগুলো তৈরি করছে না।



 দ্য নিউজের কাছে উপলব্ধ ওষুধের তালিকা এবং করাচি, লাহোর এবং ইসলামাবাদের বেশ কয়েকটি ফার্মেসির সমীক্ষা থেকে জানা গেছে যে টিবি, মৃগীরোগ, পারকিনসন রোগ, বিষণ্নতা, হৃদরোগ এবং অন্যান্য চিকিৎসার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ ওষুধ পাওয়া যায় না।  কারণ উৎপাদন খরচ বেড়ে যাওয়ায় ওষুধ কোম্পানিগুলো সেগুলো উৎপাদন করছে না।


No comments:

Post a Comment

Post Top Ad