খালিস্তানি সংযোগের সন্দেহ! সুধীর সুরি হত্যাকাণ্ডের তদন্তে NIA - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Saturday, 5 November 2022

খালিস্তানি সংযোগের সন্দেহ! সুধীর সুরি হত্যাকাণ্ডের তদন্তে NIA



 পাঞ্জাবের অমৃতসরে শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রকাশ্যে খুন হন শিবসেনা নেতা সুধীর সুরি।  এই হত্যাকাণ্ডের পিছনে খালিস্তানি সন্ত্রাসীদের সন্দেহের কারণে, এখন জাতীয় তদন্ত সংস্থা (এনআইএ) বিষয়টি তদন্তে পৌঁছেছে।  বর্তমানে এই খুনের প্রাথমিক তদন্ত করেছে NIA।  পাকিস্তানের একটি খালিস্তানি সন্ত্রাসী সংগঠন এই খুনের দায় স্বীকার করেছে।  এ সময় ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে এনআইএ দল।  এনআইএ সুরির মৃত্যুর পরে ভাইরাল হওয়া সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টগুলিও তদন্ত করছে।



 একই সময়ে, সুধীর সুরির মৃতদেহের শেষকৃত্য শুরু হলেও তার পরিবার এখনও শেষকৃত্যের জন্য প্রস্তুত নয়।  পরিবারের শর্ত হল সুধীরকে শহীদের মর্যাদা দিতে হবে।  তার পরিবারের সদস্যরা এই ঘটনার সিবিআই তদন্তের দাবী জানিয়েছেন।  পরিবারের সদস্যরা সেই পুলিশ কর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী করেছে যারা সুধীরের নিরাপত্তায় নিযুক্ত ছিল এবং আততায়ী ঢুকে তাকে খুন করেছে।  পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, দাবী পূরণ হলেই তারা মরদেহের শেষকৃত্য করবেন।



 শুক্রবার পাঞ্জাবের অমৃতসরে শিবসেনা (তকসালি) নেতা সুধীর সুরিকে গুলি করে খুন করা হয়।  পুলিশ এ তথ্য জানিয়েছে।  তিনি বলেন, ঘটনাটি ঘটেছে শহরের ব্যস্ততম এলাকা মাজিঠা রোডে গোপাল মন্দিরের বাইরে, যেখানে সুরি অন্যদের সঙ্গে ধর্নায় বসেছিলেন।  রাস্তার ধারে কিছু খণ্ডিত মূর্তি পাওয়া যাওয়ার পর তিনি তার সহযোগিদের নিয়ে মন্দিরের বাইরে বসেছিলেন।  তিনি বলেন, এটি মূর্তি অপসারণের ঘটনা।  সুরি গোপাল মন্দির পরিচালনার বিরোধিতা করছিলেন।




পুলিশ জানিয়েছেন,  পাঁচটিরও বেশি গুলি করা হয়েছিল এবং তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে তার মৃত্যু হয়।  অভিযুক্ত সন্দীপ সিংকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং অপরাধে ব্যবহৃত অস্ত্রও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।  তিনি বলেছিলেন যে সুরি দীর্ঘদিন ধরে অনেক গ্যাংস্টারের টার্গেট ছিল।  সরকার তাকে আট পাঞ্জাব পুলিশ কর্মী সহ নিরাপত্তা প্রদান করেছিল।  ঘটনার একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে যাতে গুলির শব্দ শোনা যায়। ভিডিওর সত্যতা যাচাই করে নি প্রেসকার্ড নিউজ। গুলিবিদ্ধ হওয়ার কয়েক মুহূর্ত আগে, সুধীর সুরি পুলিশ কর্মীদের কাছে ধর্নার কারণ ব্যাখ্যা করছেন।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad