মদ পান করলে মুক্তি পাওয়া যাবে হৃদরোগ থেকে - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Sunday 8 October 2023

মদ পান করলে মুক্তি পাওয়া যাবে হৃদরোগ থেকে

  



মদ পান করলে মুক্তি পাওয়া যাবে  হৃদরোগ থেকে 



প্রেসকার্ড নিউজ লাইফ স্টাইল ডেস্ক,০৮অক্টোবর: সাধারণত যারা মাঝে মাঝে অ্যালকোহল পান করে তারা বিশ্বাস করে যে এটি তাদের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। আবার অনেক লোকের শুধু অ্যালকোহল পান করার জন্য একটি অজুহাত প্রয়োজন।  কেউ কেউ বেশি পান করেন এবং কেউ কম পান করেন, কিন্তু জানেন কী যে সীমার মধ্যে অ্যালকোহল পান করা হৃদযন্ত্রের স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে পারে?  এই তথ্যটি শুধুমাত্র সেই সমস্ত লোকদের জন্য যারা প্রতিদিন মদ পান করেন।  চিকিৎসকরা বলছেন, প্রতিদিন মদ্যপানকারীরা যদি নির্দিষ্ট সীমার মধ্যে অ্যালকোহল পান করেন, তাহলে তাদের হৃদরোগের অনেকেরটাইটাই ঝুঁকি কমে যায়।  এছাড়া খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রাও নিয়ন্ত্রণে থাকে।  তবে এটি প্রত্যেক ব্যক্তির সাথে হবে এমন নয়।


 ফোর্টিস এসকর্টস হার্ট ইনস্টিটিউটের ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজি বিভাগের ড. বিশাল রাস্তোগি বলেছেন যে মহিলাদের জন্য প্রতিদিন একটি পানীয় এবং পুরুষদের জন্য দুটি পানীয় খাওয়া খুবই উপকারী।  যদি এই পরিমাণে অ্যালকোহল পান করা হয় তবে এটি হার্টের স্বাস্থ্যের জন্য খুব উপকারী।  এটি শরীরে ভালো কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়ায় এবং হৃদরোগের ঝুঁকিও কমায়।  এর অর্থ এই নয় যে যারা অ্যালকোহল পান করেন না তাদের এটি শুরু করা উচিৎ।  এছাড়াও, এটি এমন নয় যে একজনকে প্রতিদিন এত অ্যালকোহল পান করতে হবে।  অ্যালকোহলের ক্ষেত্রে, প্রতিটি ব্যক্তির শারীরিক প্রতিক্রিয়া এবং শরীরের উপর এর প্রভাব অনেক কারণের উপর নির্ভর করে।


 একজন ব্যক্তির খাদ্য, ব্যায়াম এবং ধূমপানের অভ্যাসগুলিও অ্যালকোহলের সঙ্গে সমান ভাবে যুক্ত ঝুঁকি এবং সুবিধার বড় কারণ।  অর্থাৎ, যে ব্যক্তি প্রতিদিন ব্যায়াম করেন, ভালো জীবনযাপন করেন এবং ভালো খাদ্যাভ্যাস করেন, ধূমপান না করেন, তাহলে সীমিত পরিমাণে অ্যালকোহল গ্রহণ করলে তার শরীরে তেমন মারাত্মক প্রভাব পড়ে না যতটা সাধারণ মানুষের ওপর পড়ে।


 অতিরিক্ত পরিমাণে অ্যালকোহল গ্রহণ করা খুব বিপজ্জনক। এর কারণে বিপি বেড়ে যায় এবং হার্ট বিটও অনিয়মিত হয়ে পড়ে।  স্ট্রোকের ঝুঁকিও থাকে।  অ্যালকোহল লিভারের ক্ষতি করে এবং হজমের রোগ এমনকি লিভার সিরোসিসের ঝুঁকি থাকে।


 হার্টের সুস্থতার জন্য :

 আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশনের মতে, হার্টকে ফিট রাখতে ভালো ডায়েট, ব্যায়াম এবং তামাক না খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়।  যাদের ইতিমধ্যেই হৃদরোগ রয়েছে তাদের যে কোনও উপায়ে অ্যালকোহল গ্রহণ করা এড়ানো উচিৎ।  এই ক্ষেত্রে ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করাও গুরুত্বপূর্ণ।  প্রতিদিন অতিরিক্ত পরিমাণে অ্যালকোহল গ্রহণ করা ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায় এবং মানসিক স্বাস্থ্যেরও অবনতি ঘটায়।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad