অকারণে শিশুর মাথা গরম থাকার কারণ - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Sunday, 13 March 2022

অকারণে শিশুর মাথা গরম থাকার কারণ

 




 

 আজ এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে আমরা আপনাদের জানাবো যে কারণে শিশুদের মাথা গরম থাকে।  এর সঙ্গে, আপনি এটি এড়ানোর উপায়গুলিও জানবেন।  


ছোট বাচ্চাদের মাথা গরম থাকে কেন?


শিশুদের গরম মাথার পিছনে চিন্তার কিছু নেই।  এর পেছনে কিছু সাধারণ কারণ থাকতে পারে।  যা নিম্নরূপ-


 ১- গরম খাবার খেলে শিশুদের মাথার তাপমাত্রা বেড়ে যেতে পারে।  এ নিয়ে একটি গবেষণাও বেরিয়ে এসেছে, যা প্রমাণ করে যে ছোট বাচ্চাদের ডায়েটে বেশি গরম জিনিস যোগ করা হলে তা তাদের মাথাও গরম করে দিতে পারে।  গবেষণাটি এনসিবিআই ন্যাশনাল সেন্টার ফর বায়োটেকনোলজি ইনফরমেশনের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে।  


 ২ - যখন শিশুরা তাদের দৈনন্দিন রুটিনে শারীরিক কার্যকলাপ যোগ করে।  তাই এই সময়ে শিশুদের শরীরে ROS অর্থাৎ প্রতিক্রিয়াশীল অক্সিজেন প্রজাতির মাত্রা বাড়তে থাকে।  যার কারণে শরীরের তাপমাত্রাও বাড়তে পারে।  এমতাবস্থায় অল্পবয়সী শিশুরা যদি হাত-পা বেশি নাড়াচাড়া করে বা খেলাধুলা করে তাহলে শরীরে তাপ উৎপন্ন হতে পারে এবং মাথা গরম হতে পারে।


৩ - যখন একজন মা নবজাতক শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ান, তখন মায়ের ত্বকের সঙ্গে যোগাযোগের কারণে শিশুর শরীরের তাপমাত্রা বেড়ে যেতে পারে।  এ কারণে শিশুর মাথার তাপমাত্রাও বাড়তে পারে।  এমন অবস্থায় জ্বর না থাকলেও শিশুর মাথা গরম হতে পারে।


 ৪ - বাচ্চাদের দাঁত উঠতে শুরু করে, সেই সময়েও বাচ্চাদের শরীরের তাপমাত্রার পরিবর্তন হতে পারে।  এমন পরিস্থিতিতে শিশুদের মাথাও গরম হতে পারে।  তবে অনেক সময় বাচ্চাদেরও দাঁত উঠলে জ্বরের সমস্যায় পড়তে হয়।  

 

 ৫- ঘরের তাপমাত্রা শিশুর উপরও প্রভাব ফেলে।  ঘরের তাপমাত্রা ঠান্ডা হলে শিশুর মাথাও ঠান্ডা অনুভূত হবে এবং ঘরের তাপমাত্রা গরম থাকলে শিশুর মাথাও গরম অনুভূত হতে পারে।  কারণ গরম পরিবেশে থাকার কারণে শরীর থেকে তাপ দূর করা কঠিন।  এমন অবস্থায় শরীরের তাপমাত্রাও গরম অনুভূত হয়।  এর ভিত্তিতে, আমরা বলতে পারি যে শিশুর শরীরের তাপমাত্রাও গরম হতে পারে।


 বাচ্চাদের কখন জ্বর হয়?


 একটি গবেষণা আমাদের সামনে এসেছে, যার ভিত্তিতে শিশুর তাপমাত্রা ১০০.৪ ডিগ্রি ফারেনহাইট অর্থাৎ ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি হলে শিশুদের জ্বরের ক্যাটাগরিতে রাখা হয়। এই শিশুদের জন্য অবিলম্বে ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করা গুরুত্বপূর্ণ।  


১ - ঋতু তাপমাত্রার উপর ভিত্তি করে শিশুদের পোশাক চয়ন করুন। খুব ঠাণ্ডা হলে পশমী কাপড় বেছে নিন এবং সাধারণ ঠান্ডা হলে একই পোশাক শিশুদের শরীরের তাপমাত্রা বাড়িয়ে দিতে পারে। এমতাবস্থায় উলের কাপড় পরিহার করার চেষ্টা করুন এবং পাতলা ও সুতির কাপড় ব্যবহার করুন।


 ২- যখনই আপনি শিশুকে বুকের দুধ খাওয়াবেন, সেই সময়ের মধ্যে শিশুর অবস্থান পরিবর্তন করতে থাকুন, যাতে মায়ের সঙ্গে যোগাযোগের কারণে শিশুর শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি না পায়।


 ৩- কিছু মায়ের অভ্যাস থাকে যে তারা যখনই তাদের শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ান, তখনই তারা পুরোপুরি ঢেকে দেন।  এটা করা অন্যায়।  এটি করলে শিশুর শরীরের তাপমাত্রাও বাড়তে পারে এবং তার মাথা গরম অনুভব করতে পারে।  যখনই মায়েরা তাদের বাচ্চাদের বুকের দুধ খাওয়ান, তখন তাদের পুরোপুরি ঢেকে দেবেন না।


 ৪- শিশুকে ঢিলেঢালা এবং আরামদায়ক পোশাক পরুন।


 ৫ - শিশু যেখানে ঘুমায় সেই ঘরের তাপমাত্রাও ঠিক রাখুন।  খুব গরম বা খুব ঠান্ডা তাপমাত্রা শিশুর অস্বস্তিকর বোধ করতে পারে।


 কখন ডাক্তার দেখাতে হবে


 ১- শিশুর অতিরিক্ত ঘাম হলে


 ২- যখন শিশুর শ্বাস নিতে অসুবিধা হয়।


 ৩- জলশূন্যতার সমস্যা থাকলে


 ৪ - যখন গলা ব্যথা হয়।


 ৫- যদি শিশুর বমি বমি ভাব বা বমি হয়, ডায়রিয়া হয়


No comments:

Post a Comment

Post Top Ad