পাকিস্তানের হয়ে গুপ্তচরবৃত্তি! গ্ৰেফতার ভারতীয় বিমান বাহিনীর জওয়ান - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Thursday, 12 May 2022

পাকিস্তানের হয়ে গুপ্তচরবৃত্তি! গ্ৰেফতার ভারতীয় বিমান বাহিনীর জওয়ান

 


গুপ্তচরবৃত্তি অভিযোগে গ্রেফতার ভারতীয় বিমান বাহিনীর জওয়ান। দিল্লী পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই-এর জন্য গুপ্তচরবৃত্তি অভিযোগে  ভারতীয় বিমান বাহিনীর জওয়ানকে গ্রেফতার করেছে।  অভিযুক্ত দেবেন্দ্র শর্মা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।  তাকে বলা হচ্ছে অভিযুক্ত অনেক তথ্য তার কর্তা পাকিস্তানে বসা ভারতীয় সেনাবাহিনীর সাথে সম্পর্কিত দিয়ে যাচ্ছিলেন।  এর পরিবর্তে, তিনি টাকা পেতেন।



 সুব্রত পার্কের এয়ার ফোর্স রেকর্ড অফিসের সার্জেন্ট দেবেন্দ্র শর্মাকে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই-এর জন্য গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে গ্ৰেফতার করা হয়েছে।  পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই দেবেন্দ্র শর্মার কাছ থেকে প্রতিরক্ষা স্থাপনা এবং বিমান বাহিনীর আধিকারিকদের সংবেদনশীল তথ্য ও নথিপত্র নিয়ে যেত।  গুপ্তচরবৃত্তির বদৌলতে দেবেন্দ্র শর্মাকেও টাকা দেওয়া হয়েছিল।



 আরও জানা যায়, অভিযুক্ত ভারতীয় বায়ুসেনার জওয়ানকে হানিট্র্যাপের মাধ্যমে ফাঁদে ফেলে তারপর সেনাবাহিনীর সঙ্গে সম্পর্কিত তথ্য পাওয়া যায়।  দিল্লী পুলিশ সূত্রে খবর, দেবেন্দ্র শর্মাকে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই-এর জন্য গুপ্তচরবৃত্তির সন্দেহে দীর্ঘদিন ধরে নজরদারি করা হচ্ছিল।  এর পরে, দিল্লী পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ এখন গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে ভারতীয় বিমান বাহিনীর জওয়ান দেবেন্দ্র শর্মাকে গ্ৰেফতার করেছে।  এই পুরো ঘটনায় পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই জড়িত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানা গেছে।



দেবেন্দ্র শর্মাকে হানিট্র্যাপে ফাঁসিয়ে বায়ুসেনা সংক্রান্ত সংবেদনশীল তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ।  কয়টি রাডার কোথায় অবস্থান করছে?  ঊর্ধ্বতন আধিকারিকদের নাম ও ঠিকানা চাওয়া হয়েছে।  গোয়েন্দা সংস্থার তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ 6 মে অভিযুক্ত দেবেন্দ্র শর্মাকে গ্রেপ্তার করে।  ক্রাইম ব্রাঞ্চ সূত্রে খবর, দেবেন্দ্র শর্মাকে ধৌলা কুয়ান থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।  বর্তমানে দিল্লী পুলিশ অভিযুক্ত দেবেন্দ্র শর্মার স্ত্রীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে কিছু সন্দেহজনক লেনদেনের সন্ধান পেয়েছে।



পুলিশ সূত্রে খবর, দেবেন্দ্র শর্মা কানপুরের বাসিন্দা।  তিনি একটি মহিলা প্রোফাইল থেকে ফেসবুকে বন্ধু হন।  দেবেন্দ্র শর্মাকে ফোনের মাধ্যমে ফাঁদে ফেলা হয় এবং তারপর তার কাছ থেকে সংবেদনশীল তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা করা হয়।  যে মোবাইল ফোন থেকে তিনি মহিলা দেবেন্দ্র শর্মার সঙ্গে কথা বলতেন সেটি ভারতীয় পরিষেবা প্রদানকারীর নম্বর।


 

 পুলিশ ওই নারীকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে।  এই পুরো কাজের সঙ্গে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই জড়িত বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।  শুধু নিশ্চিতকরণের অপেক্ষা, কারণ এর আগেও ভারতীয় সেনাবাহিনীর অনেক অফিসার ও কর্মচারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে, যারা আইএসআই-এর জন্য গুপ্তচরবৃত্তি করত।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad