উত্তেজনার মাঝেই সম্প্রীতির নজির! কাশ্মীরি পন্ডিত মহিলার শেষকৃত্যে সাহায্যের হাত বাড়ালেন মুসলিমরা - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Sunday, 15 May 2022

উত্তেজনার মাঝেই সম্প্রীতির নজির! কাশ্মীরি পন্ডিত মহিলার শেষকৃত্যে সাহায্যের হাত বাড়ালেন মুসলিমরা


বুদগাম জেলায় সন্ত্রাসীরা কাশ্মীরি পণ্ডিত রাহুল ভাটকে হত্যার পর কাশ্মীর জুড়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে।  এদিকে, এমন পরিবেশেও কুলগাম জেলায় আবারও ভ্রাতৃত্বের দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন মুসলিম ও কাশ্মীরি পণ্ডিতরা। স্থানীয় মুসলমানরা একজন একা হিন্দু ব্যক্তিকে তার ৮০ বছর বয়সী মায়ের শেষকৃত্য করতে সাহায্য করেছিল।  


প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে, কুলগামের ওয়াই কে পোরা গ্রামের ৮০ বছর বয়সী এক পণ্ডিত মহিলা অনন্তনাগের মাত্তান এলাকায় তার আত্মীয়দের একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন। কিন্তু অনুষ্ঠান চলাকালীন তার অবস্থার অবনতি হলে তিনি মারা যান।


 মৃত দুলারি ভাট তার নিজের গ্রাম ওয়াই কে পোরাতে স্থানীয় লোকজনের সাথে তার জীবনের বেশিরভাগ সময় কাটিয়েছেন। স্থানীয় মুসলমানরা খবর পেয়ে মাত্তানে পৌঁছে তার মৃতদেহ তার নিজ গ্রাম ওয়াই কে পোরা, কুলগামে নিয়ে আসে। এ সময় শত শত মুসল্লি বিশেষ করে মহিলার প্রতিবেশী ও স্থানীয় লোকজন তার শেষ দর্শনের জন্য অপেক্ষা করছিলেন।


স্থানীয় বাসিন্দা আলতাফ আহমেদ বলেন, 'একাকী পণ্ডিত পরিবার কয়েক দশক ধরে তাদের মুসলিম প্রতিবেশীদের সঙ্গে বসবাস করে আসছে এবং তাদের মধ্যে অগাধ ভালোবাসা রয়েছে। মৃতা একজন মহান ব্যক্তি ছিলেন, যিনি মুসলমানদের উৎসব উপলক্ষে বেড়াতে যেতেন এবং যখনই আমাদের জায়গায় কেউ মারা যেতেন তিনি ছিলেন সামগ্রিক সংস্কৃতির অংশ।  আজ আমাদের কর্তব্য তাঁর ধর্মীয় আচার অনুযায়ী তার শেষকৃত্য সম্পন্ন করা, নিশ্চিত করে অনুগ্রহ ফিরিয়ে দেওয়া।'


দুলারির বন্ধু সাজা বানো জানান, 'নিহত তার ঘনিষ্ঠ বন্ধু এবং তারা একসঙ্গে দিন কাটাতেন। তার মৃত্যু গোটা গ্রামের জন্য এক বিরাট ক্ষতি। এটা আমার জন্য ব্যক্তিগত ক্ষতি কারণ আমি আমার ভালো বন্ধুকে হারিয়েছি।' দুলারির ছেলে সুভাষ ভাট বলেছেন যে, 'এলাকার মুসলমানদের কাছে তিনি কৃতজ্ঞ, যারা এই দুঃখের সময়ে তার পাশে দাঁড়িয়েছেন। আমরা একসাথে বসবাস করছি এবং ৯০- এর দশকে আমার বাবা নিহত হওয়া সত্ত্বেও আমরা কাশ্মীর থেকে পালিয়ে যাইনি। এরপর থেকে আমরা এলাকার মুসলমানদের নিয়ে বসবাস করছি, যারা এই চরম ক্ষতির মুহূর্তে আমাদের সঙ্গে আছেন।'


নিহত দুলারির আত্মীয় চুন্নি লাল ভাট মুসলমানদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, 'কাশ্মীর হল সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি, ভ্রাতৃত্বের শ্রেষ্ঠ উদাহরণ। এখানে পন্ডিত এবং মুসলমানদের মধ্যে একটি মহান এবং দৃঢ় বন্ধন রয়েছে, যা কয়েক দশক ধরে চলে আসছে। আজ এলাকার মুসল্লিরা আমাদের পাশে দাঁড়িয়ে দুলারির শেষকৃত্যে অংশ নিয়েছেন। দুলারির শেষকৃত্য পর্যন্ত তারা উপস্থিত ছিলেন। ' তিনি বলেন, 'মুসলমান ও পণ্ডিত একে অপরকে ছাড়া অসম্পূর্ণ।'


উল্লেখ্য, বদগামের তহসিল অফিস চান্দুরায় কর্মরত কাশ্মীরি পণ্ডিত রাহুল ভাটকে হত্যার পর কাশ্মীর এই সময়ে উত্তেজনার কবলে রয়েছে। এই হত্যাকাণ্ডের পর, লোকেরা অভিবাসীদের নিরাপত্তা এবং নিরাপদ পোস্টিংয়ের দাবীতে কাশ্মীর জুড়ে ব্যাপকভাবে প্রতিবাদ করেছেন। সুশীল সমাজের দলগুলিও রাহুলের হত্যার নিন্দা করেছে এবং কাশ্মীরে সাম্প্রদায়িক ফ্যাব্রিককে শক্তিশালী করার আহ্বান জানিয়েছে। এই হত্যাকাণ্ডের পর যখন মানুষ রাস্তায় মারামারি করছে, তখন স্থানীয় কাশ্মীরি মুসলমান ও হিন্দুরা একে অপরকে প্রয়োজনের সময় সাহায্য করে পারস্পরিক ভালোবাসার দৃষ্টান্ত স্থাপন করছে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad