'যে দলেরই হোন না কেন, সম্প্রীতি রক্ষা করুন', হাওড়া কাণ্ডে বার্তা হাইকোর্টের - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Wednesday, 15 June 2022

'যে দলেরই হোন না কেন, সম্প্রীতি রক্ষা করুন', হাওড়া কাণ্ডে বার্তা হাইকোর্টের


'কোনও রকম অপ্রীতিকর ঘটনা যেন না ঘটে সেটাই রাজ্যের লক্ষ্য হওয়া উচিৎ', নবী মহাম্মদ বিতর্কে হাওড়ায় সহিংসতার ঘটনায় দায়ের হওয়া জনস্বার্থ মামলার শুনানিতে বুধবার এমনই মন্তব্য করল কলকাতা হাইকোর্ট।‌


নূপুর শর্মার নবী মোহাম্মদকে নিয়ে করা বিতর্কিত মন্তব্যের আঁচ পড়েছে বাংলাতেও। হাওড়ার পাঁচলা উলুবেরিয়া সহ একাধিক প্রান্তে অশান্তির আগুন জ্বলে উঠেছে। রাস্তা অবরোধ, ট্রেন অবরোধ, ভাঙচুর-অগ্নি সংযোগ কিছুই বাদ যায়নি। সহিংসতায় এই ঘটনায় ৬ টি জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয় কলকাতা হাইকোর্টে। সেই মামলার শুনানি ছিল এদিন। হাওড়া সহ অন্যান্য জায়গায় অশান্তির মামলায় কয়টি এফআইআর, কতজন গ্ৰেফতার, সেই সংক্রান্ত রিপোর্ট কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে পেশ করে রাজ্য।


মামলার শুনানিতে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চের তরফে বলা হয়, মামলাকারীদের বলব, আপনারা যে দলেরই হোন না কেন, সম্প্রীতি রক্ষা করুন। 


এই ঘটনার জেরে রাজ্যের পরিস্থিতি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য রাজ্য সরকার এদিন দিয়েছে। ওই রিপোর্টে উল্লেখ রয়েছে, হাওড়ায় অশান্তির ঘটনা ঘটেছে ৫ জায়গায়, এফআইআর দায়ের হয়েছে ১৭ টি এবং গ্রেফতার হয়েছে ৯৯ জন। পাশাপাশি, হাওড়া গ্রামীণে ৯ টি এফআইআর ও ৩৮ জন গ্রেফতার হয়েছে। 


এছাড়াও বারাসতে ও মুর্শিদাবাদে তিনটে জায়গায় অশান্তি হয়েছে এবং এই দুই জায়গায় মিলে মোট ৯ টি এফআইআর ও ২৩ জন গ্ৰেফতার হয়েছে। এসবের পাশাপাশি জঙ্গিপুরে ৩ টি, কৃষ্ণনগরে ৩ টি এফআইআর এবং খড়গপুর, ডায়মন্ড হারবার, শিয়ালদহ ও বিধাননগরে একটি করে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। সেই সঙ্গেই গ্ৰেফতার করা হয়েছে মোট ৭৬ জনকে। রিপোর্টে আরও উল্লেখ রয়েছে, সব ভিডিও ফুটেজ নেওয়া হয়েছে এবং বিগত ৪৮ ঘন্টায় কোনও ঘটনা ঘটেনি। 


অন্যদিকে মামলাকারীদের বক্তব্য, গ্রেফতার হওয়া একাংশই অশান্তির ঘটনায় যুক্ত ছিল না বলে তাদের ধারণা। তাদের প্রশ্ন ও প্রতিবাদের নামে সাধারণ মানুষের কেন ভোগান্তি হবে? নাগরিকদের নিরাপত্তার দায়িত্ব রাজ্যের। রাজ্য অশান্তি করার সুযোগ করে দিয়েছে এবং এই ঘটনা পূর্বপরিকল্পিত বলেই দাবী তাদের। 


পাশাপাশি মামলাকারীদের আবেদন, ধর্মীয় যেকোনও মিছিলে যেন অনুমতি না দেওয়া হয় এবং অবিলম্বে সেনা নামানোর উচিৎ, যাতে ভবিষ্যতে অশান্তি না হতে পারে। তাদের কথায়, 'আমরা এই রাজ্যে বুলডোজার দেখতে চাই না, আমরা চাই আইন মেনে সব হোক।'


উল্লেখ্য, এদিন এই মামলায় শুনানি শেষ হলেও রায় দান স্থগিত রেখেছেন বিচারপতিরা।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad