কাঁকরোলের চাষ পদ্ধতি - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Saturday, 16 July 2022

কাঁকরোলের চাষ পদ্ধতি



মাটির প্রকৃতি:
  কাঁকরোল চাষের জন্য দোআঁশ ও এঁটেল দোআঁশ মাটি সবচেয়ে ভালো।  তবে জৈব সার প্রয়োগ করে অন্য মাটিতেও কাঁকরোল চাষ করা যায়।

  জমি প্রস্তুতি:

  মাটির উপরিভাগ 4-5টি লাঙল দিয়ে সমতল করতে হবে এবং একটি মই দিয়ে মাটি ভালভাবে ঢেলে দিতে হবে।  চাষের সময় মাটিতে প্রয়োজনীয় পরিমাণ সার দিতে হবে।  তারপর আবাদি জমিতে প্রয়োজনীয় আকারের ক্ষেত তৈরি করতে হবে।  জমি আগাছামুক্ত রাখতে হবে।

  কাঁকরোল বীজ বপনের সময়: কাঁকরোলের বীজ বপন বা মোথা রোপণের উপযুক্ত সময় ফেব্রুয়ারি থেকে মে।

চারা তৈরি:

  কাঁকরোল বীজ থেকে বীজ জন্মানো যায়।  তবে তা না করাই ভালো।  কারণ বীজ থেকে মাত্র 50% গাছ জন্মাতে পারে। বীজ থেকে উত্থিত বেশিরভাগ গাছপালা পুরুষ উদ্ভিদ।  এছাড়াও বীজ থেকে জন্মানো গাছের ফলন কম হয় এবং জাতের মানও ভালো হয় না।  সেজন্য কন্দ বা মথ থেকে কাঁকরোল চারা তৈরি বা বংশবিস্তার করা হয়।  গাছের কান্ড কেটে বালি বা মাটিতে ছায়াযুক্ত স্থানে পুঁতে রাখলে 10-15 দিনের মধ্যে অঙ্কুর বের হবে।  কাটার গোড়ায় রুটিং হরমোন প্রয়োগ করা হলে শিকড় দ্রুত বৃদ্ধি পাবে।  তবে বেশি ঝামেলা ছাড়াই সরাসরি কন্দ লাগানো ভালো।

  বেড তৈরিতে প্রস্থ 2 মিটার হতে হবে এবং জমির দৈর্ঘ্য অনুযায়ী লম্বা করতে হবে।  দুটি বেডের মধ্যে ড্রেনের প্রস্থ ও গভীরতা হবে যথাক্রমে 30 সেমি এবং 20 সেমি।  প্রতিটি ক্ষেতে 2 সারি থাকা উচিৎ।  বিছানায় সারি থেকে সারির দূরত্ব হবে 2 মিটার।  প্রতিটি সারিতে 60x60x60 সেমি একটি গর্ত তৈরি করা উচিৎ।

  কন্দগুলিকে 4-6 সেমি গভীরে মাটিতে পুঁতে দিতে হবে।  তারপর মাটি দিয়ে মাটি ঢেকে তার উপর খড় বিছিয়ে দিন যাতে মাটি শুকিয়ে না যায়।  প্রয়োজনে 2/1 দিন পর মাটি চালনি দিয়ে সেচ দিতে হবে।  রস না ​​থাকলে কন্দ বাড়ে না এবং বেশি রস থাকলে কন্দ পচে যায়।  মোথা লাগানোর সময় পুরুষ ও স্ত্রী মোথার পরিমাণ সঠিকভাবে প্রয়োগ করতে হবে।  তাই 9টি স্ত্রী পতঙ্গের পর 1টি পুরুষ পোকা প্রয়োগ করতে হবে।  পুরুষ গাছে স্ত্রী গাছের চেয়ে পরে ফুল ফোটে।  অতএব, স্ত্রী গাছ লাগানোর 15-20 দিন আগে পুরুষ গাছ লাগানো উচিৎ।

রোপণের দূরত্ব:
  সারি থেকে সারির দূরত্ব হবে 2 মিটার এবং গাছ থেকে গাছের দূরত্ব হবে 2 মিটার। 

  সার পদ্ধতি

  ১) জমি তৈরির সময় গোবর সার ছিটিয়ে জলে মিশিয়ে দিতে হবে।
  ২) টিএসপি, এসওপি, জিপসাম রোপণের ১৫ দিন আগে মাটিতে মিশিয়ে দিতে হবে।
  3) অঙ্কুরোদগমের পর যথাক্রমে 15 ও 30 দিনের মধ্যে ইউরিয়া সার দুটি সমান অংশে প্রয়োগ করতে হবে।
  4) এসওপি বাস্তবায়নের জন্য এমপি সার প্রয়োগের প্রয়োজন নেই।
  5) মাটি বেশি অম্লীয় হলে হেক্টর প্রতি 80-100 কেজি ডলোচুন শেষ চাষ করা হয়।

 

  অন্তর্বর্তীকালীন যত্ন:

  অঙ্কুরোদগমের পর আগাছা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।
  খালের সাহায্যে জমিতে সেচ দিতে হবে।
  অতিরিক্ত জল নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করতে হবে।
  মহিলা ফুলগুলিকে প্রতিদিন সকালে কৃত্রিমভাবে পরাগায়ন করতে হবে।
  রোগ ও পোকামাকড়ের উপদ্রব দেখা দিলে তা নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা নিতে হবে।
  কাঁকরোল গাছ 10-15 সেমি লম্বা হলে চারার গোড়ায় 1টি কাঠি পুঁতে দিতে হবে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad