'হাত কেটে শরীর বাঁচানোর চেষ্টা', ফের আক্রমণ দিলীপের - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Friday, 29 July 2022

'হাত কেটে শরীর বাঁচানোর চেষ্টা', ফের আক্রমণ দিলীপের


নিয়োগে দুর্নীতি কাণ্ডে প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গ্ৰেফতারের পর থেকেই ব্যাকফুটে তৃণমূল পরিচালিত রাজ্য সরকার। এই ইস্যুতে বিরোধীদের একের পর এক কটাক্ষে জর্জরিত তৃণমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। এই নিয়ে আবারও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করল বিজেপি। 


বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করেছেন।‌দিলীপ ঘোষ বলেন, মমতা "হাত কেটে শরীর বাঁচানোর চেষ্টা' করেছেন।" একটি টিভি চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে দিলীপ ঘোষ বলেন যে, মমতা সরকার পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে বরখাস্ত করতে অনেক সময় নিয়েছে।


দিলীপ ঘোষ বলেন, “মমতা জানতেন যে তিনি এখনই পার্থকে দল ও মন্ত্রিসভা থেকে বরখাস্ত না করলে তাঁর অনেক ক্ষতি হবে। দলের মধ্যে বিদ্রোহ শুরু হলে তিনি এই সিদ্ধান্ত নেন। তিনি বলেন, “এই মানুষগুলো কতটা দুর্নীতিবাজ তা রাজ্যের মানুষ ও গোটা জাতি দেখছে, শরীর বাঁচাতে হলে আক্রান্ত হাত কাটতে হত, তাই কেটে ফেলেছে।"


উল্লেখ্য, দুর্নীতির অভিযোগে শনিবার পার্থের গ্রেফতারের পরে, বিজেপি দাবী করেছে যে, তদন্তকারী সংস্থাগুলিকে শীর্ষ তৃণমূল নেতৃত্বকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা উচিৎ। এর আগে, দিলীপ ঘোষ অভিযোগ করেছিলেন যে তৃণমূল নেতারা বিভিন্ন পদে নিয়োগের জন্য বছরের পর বছর ধরে প্রচুর অর্থ জমা করেছেন।  


তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে স্পষ্ট উল্লেখ করে বলেছিলেন যে, কেউ বিশ্বাস করবে না যে তাঁর (তৃণমূল কংগ্রেস) হাইকমান্ড এ বিষয়ে সচেতন নয়। কারও নাম না করে দিলীপ ঘোষ বলেন, 'এ পর্যন্ত যে প্রমাণ বেরিয়ে এসেছে তার ভিত্তিতে শীর্ষ নেতৃত্বকে জিজ্ঞাসাবাদ করা উচিৎ।'

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad