পার্থ ঘনিষ্ঠদের ছেঁটে ফেলতেই কী রদবদল! তৃণমূলের জেলা সভাপতি-চেয়ারম্যান পদে এল নতুন মুখ - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Tuesday, 2 August 2022

পার্থ ঘনিষ্ঠদের ছেঁটে ফেলতেই কী রদবদল! তৃণমূলের জেলা সভাপতি-চেয়ারম্যান পদে এল নতুন মুখ


নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গ্রেফতারের পর থেকেই চড়ছে রাজনৈতিক উত্তেজনার পারদ। চলমান এই পরিস্থিতিতেই সোমবার তৃণমূল কংগ্রেস (টিএমসি) একটি বড় রদবদল করেছে, যেখানে কয়েকজন মন্ত্রী সহ নতুন কিছু মুখকে সংগঠনে স্থান দেওয়া হয়েছে। আগামী বছর হতে যাওয়া গুরুত্বপূর্ণ পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে দলকে শক্তিশালী করাই এই রদবদলের উদ্দেশ্য বলা হচ্ছে। দলের প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী অধিকাংশ জেলা সভাপতি ও চেয়ারম্যান পরিবর্তন করা হয়েছে।


সোমবার এর আগে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মন্ত্রিসভায় রদবদলের ঘোষণা করেন এবং বলেছিলেন যে, বর্তমান কিছু মন্ত্রীকে দলীয় সংগঠনে পাঠানো হবে। দলের তরফে একটি বিবৃতি জারি করা হয়, "অল ইন্ডিয়া তৃণমূল কংগ্রেস মাননীয় সভাপতি, শ্রীমতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় এবং নির্দেশনায় পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূল কংগ্রেসের কিছু নতুন জেলা সভাপতি এবং জেলা চেয়ারম্যানের নিয়োগ ঘোষণা করতে পেরে আনন্দিত," এই মর্মে।


মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘোষণার পর, পরিকল্পনা, পরিসংখ্যান এবং কর্মসূচি পর্যবেক্ষণ বিভাগের প্রতিমন্ত্রী (স্বাধীন দায়িত্ব) অসীমা পাত্র এবং সেচ ও জলপথ মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্রকে তাদের জেলার সাংগঠনিক দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। দলীয় সূত্র জানিয়েছে যে, তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক তাপস রায় এবং পার্থ ভৌমিককে দলের উত্তর কলকাতা এবং দম দম-ব্যারাকপুর অঞ্চলের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।  রদবদলের মধ্যে দলের তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছাপ স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে। এই রদবদলে, "যারা কাজ করছেন না", তাদের অপসারণ করা হয় এবং কয়েকজনকে সাংগঠনিক দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়, যা তাদের মন্ত্রী পদে থাকার পথ প্রশস্ত করে।


দলীয় এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার বারাসত সাংগঠনিক জেলার নতুন সভাপতি, বারাসত পৌরসভার সভাপতি অশনি মুখোপাধ্যায়ের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন, যিনি পার্থ চ্যাটার্জির ঘনিষ্ঠ বলে মনে করা হয়। মজার ব্যাপার হল, দলে বিতর্কিত বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে বহাল রাখা হয়েছে আশীষ ব্যানার্জির সঙ্গে।


সূত্র জানায়, দলের অভিজ্ঞ ও তরুণ নেতাদের কথা মাথায় রেখেই নতুন জেলা কমিটি গঠন করা হয়েছে।   কোচবিহার, দক্ষিণ দিনাজপুর, নদীয়া দক্ষিণ (রানাঘাট), হুগলি-শ্রীরামপুর, ঝাড়গ্রাম এবং বনগাঁ সহ বেশ কয়েকটি সাংগঠনিক জেলার সভাপতিদের পরিবর্তন করা হয়েছে। অন্যদিকে কলকাতা উত্তর, বাঁকুড়া, উত্তর দিনাজপুর, তমলুক এবং বনগাঁর মতো আরও কয়েকটি জেলার সভাপতিদের পরিবর্তন করা হবে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad