সোনার সীতাহার, হিরের ত্রিনয়ন! সেজে উঠেছে রক্ষাকালী মা - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Friday, 11 November 2022

সোনার সীতাহার, হিরের ত্রিনয়ন! সেজে উঠেছে রক্ষাকালী মা



শুক্রবার রাতেই বোল্লার রক্ষাকালী মায়ের পুজো। তার আগেই শেষ মুহুর্তের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। এদিন দুপুর থেকেই শুরু হয়েছে রক্ষাকালী মা-কে সাজানোর পালা। সোনা-রুপো হীরের গয়নায় সাজানো হচ্ছে মা রক্ষাকালীকে। 



কোমড় পর্যন্ত সীতাহার, হীরের ত্রিনয়ন, হাত বাজু, কোমড় বিছা, কানের দুল, চূড়, টিকলি, কী নেই মায়ের গয়নার তালিকায়। মায়ের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে সোনার খড়্গ। যার ওজন পৌনে ২ কেজি। এই খড়্গ রক্ষাকালী মায়ের অন্যতম আকর্ষণ। এদিন সাড়ে সাত ফুটের মাতৃমূর্তির গায়ে গয়না পড়ানো হয় প্রায় ঘন্টা তিনেক ধরে। শিবের ডমরু কলকে তামার, রুপো দিয়ে তৈরি গলার সাপ।



দক্ষিণ দিনাজপুর জেলাই শুধু নয়, উত্তরবঙ্গের অন্যতম বৃহত্তম বোল্লার রক্ষাকালী পুজো ও মেলা। শতাব্দী প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী এই রক্ষাকালী পুজো রাস পূর্ণিমার পরের শুক্রবার অনুষ্ঠিত হয়। বিগত দু’বছর করোনা অতিমারির কারণে পুজো হলেও প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞায় বোল্লায় দর্শনার্থীরা প্রবেশ করতে পারেননি। ফলে এবছর সকাল থেকেই হাজার হাজার পুন্যার্থীর সমাগমে মুখরিত হয়ে ওঠে বোল্লা এলাকা। সামনে থেকে একঝলক রক্ষাকালী মায়ের দর্শনের জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকেন দূরদূরান্ত থেকে আসা ভক্তরা।



 পুজোকে ঘিরে চারদিন ধরে বোল্লা এলাকায় বিরাট মেলা বসে, যা উত্তরবঙ্গের কোচবিহারের রাস মেলার পর দ্বিতীয় বৃহত্তম মেলা হিসেবে পরিচিত। পুজোর দিন থেকে সোমবার পর্যন্ত পুজো ও মেলার চারদিন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা সহ রাজ্য ও দেশের বিভিন্ন প্রান্তের পাশাপাশি প্রতিবেশী বাংলাদেশ থেকে ভক্তরা মেলায় যোগ দেবেন। এদিন বোল্লার রক্ষাকালী মার পুজো উপলক্ষ্যে চলে বিশেষ লুট। বোল্লার বিখ্যাত-বাতাসা, কদমা, চিনির তৈরি বিভিন্ন পুতুল লুটের উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করেন ভক্তরা। লুটের সময় আঘাত থেকে বাঁচতে ঝুড়ি দিয়ে মাথা ঢেকে রাখা হয়। মন্দির কমিটি সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার রাত ১০ টার পর থেকে পুজো শুরু হবে।


No comments:

Post a Comment

Post Top Ad