পার্থ ঘনিষ্ঠর বাড়িতে দিলীপের দলিল! গ্ৰেফতারের দাবী কুণালের - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Saturday, 12 November 2022

পার্থ ঘনিষ্ঠর বাড়িতে দিলীপের দলিল! গ্ৰেফতারের দাবী কুণালের


রাজ্যে নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ প্রসন্ন রায়ের বাড়ি থেকে পাওয়া সম্পত্তির নথিতে দিলীপ কুমার ঘোষ নামে এক ব্যক্তির নাম রয়েছে। সিবিআই সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার তালিকা তৈরি করেছে। ঐ তালিকার ৮ নম্বরে উল্লেখ রয়েছে দলিলের। ৬০ পৃষ্ঠার সম্পত্তি নথির তদন্ত শুরু করেছে সিবিআই, তবে কে এই দিলীপ ঘোষ, তা এখনও স্পষ্ট নয়। যদিও, বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ ইলেকট্রনিক মিডিয়াকে শুক্রবার জানিয়েছেন, তিনি প্রসন্নকে চেনেন। এদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের অভিযোগ, দলিলে উল্লেখিত দিলীপ কুমার ঘোষ, বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি তথা বিজেপির বর্তমান সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষই এবং তাকে গ্রেফতার করা উচিৎ।


 নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার প্রসন্ন রায়ের বাড়ি থেকে একটি নথি উদ্ধার করেছেন সিবিআই তদন্তকারীরা। ওই নথিতে অর্থাৎ অনুসন্ধান তালিকার ৮ নং পয়েন্টে দেখা গেছে, এস মজুমদার নামে এক ব্যক্তির কাছ থেকে দিলীপ কুমার ঘোষের জমি কেনা সংক্রান্ত একটি দলিল রয়েছে। এটি একটি ৬০ পৃষ্ঠার দলিল।


শনিবার, তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ, জয়প্রকাশ মজুমদাররা সাংবাদিক সম্মেলন করেন। সেখানেই দিলীপ ঘোষকে গ্ৰেফতারের দাবী ওঠে। এদিন কুণাল ঘোষ বলেন, 'সিবিআই-এর সিজার তালিকায় পাওয়া দলিল থেকে স্পষ্ট যে দিলীপ ঘোষ, প্রসন্ন রায়কে চেনেন। জমির বিষয়ে টেকনিক্যাল সহায়তা চাওয়া হয়েছে বলে তিনি স্বীকার করেছেন। প্রসন্ন রায় দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত বলে অভিযোগ সিবিআইয়ের। বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতির সম্পত্তির দলিল প্রসন্ন রায়ের কাছে কীভাবে পৌঁছল? দিলীপ ঘোষকে হেফাজতে নিয়ে প্রথমে সিবিআই তদন্ত করুক। এরপর দিলীপ ঘোষকে হেফাজতে নিতে হবে ইডিকে।'


তিনি অভিযোগ করেন, দিলীপ ঘোষ একজন প্রভাবশালী ব্যক্তি। এই কৌশলে সিবিআই আদালতকে জামিনের বিরোধিতা করে। সিবিআই এর আগে সিজার তালিকা চাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছিল, কিন্তু পরে তা প্রকাশ করে।


উল্লেখ্য, ২৬শে আগস্ট সিবিআই নিউটাউন থেকে প্রসন্ন কুমার রায়কে গ্রেফতার করেছিল। তার কাছ থেকে টাকা, জমি, ফ্ল্যাট, বিলাসবহুল রিসোর্ট, মাছের ভেড়ির ইত্যাদি পাওয়া গেছে। তাকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ মনে করা হতো। প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সাথে দেখা করার পরে তার ভাগ্য খুলে গেছে বলেই অভিযোগ। এও অভিযোগ, তিনি ৭-৮ বছরের মধ্যে কোটিপতি হয়ে উঠেছিলেন।  


সিবিআই সূত্রে খবর, রাজারহাটের ধারসায় অন্তত ১০ একর জমিতে তাঁর একটি বাগানবাড়ি রয়েছে। চকপাঞ্চুরিয়ায় আড়াই একর জমিও তার নামে। সিবিআই সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৩ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে প্রসন্নের নামে মোট ১৩৮টি জমি রেজিস্ট্রি হয়েছে। সিবিআই সূত্রে খবর, পাঁচ বছরে ১ হাজার ৩৪ কাঠা জমিতে ২০০ কোটি টাকা বিনিয়োগের সঙ্গেও জড়িত তিনি।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad