লালন মামলায় সিবিআইকে নোটিশ - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Sunday, 18 December 2022

লালন মামলায় সিবিআইকে নোটিশ



বগটুই কাণ্ডে সিবিআই হেফাজতে অভিযুক্ত লালন শেখের মৃত্যুর তদন্তের দায়িত্ব নিয়েছিল রাজ্য গোয়েন্দা সংস্থা সিআইডি।  ঘটনার তদন্ত করতে সিবিআইকে চিঠি দিয়েছে সিআইডি।  লালন শেখের মৃত্যুর বিষয়ে রবিবার সিবিআইকে চিঠি পাঠিয়েছে সিআইডি।  সূত্রের খবর, কীভাবে লালন শেখের মৃত্যু হয়েছে, সিবিআই হেফাজতে লালন শেখের শারীরিক ও মানসিক অবস্থা কী ছিল সেসব তথ্য চিঠিতে চাওয়া হয়েছে।  অন্যদিকে, তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায় মৃত অভিযুক্তের পরিবারের সদস্যদের সাথে দেখা করেছেন এবং সম্ভাব্য সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন।



 সিআইডির পাঁচ সদস্যের একটি দল বগটুই গ্রামে নিহত লালন শেখের শ্বশুরবাড়িতে পৌঁছায়, যার মধ্যে ৪ আধিকারিক ও ১ জন ফটোগ্রাফার রয়েছে।  আজও তিনি লালন শেখের পরিবার ও প্রতিবেশীদের সঙ্গে কথা বলেন।



 লালন শেখের মৃত্যুর ঘটনায় রাজ্যের সিআইডি আইজি সুনীল কুমার চৌধুরী রামপুরহাটে অস্থায়ী সিবিআই ক্যাম্প পরিদর্শন করেছিলেন।  এই ক্যাম্পের ভেতরে লালনের ঝুলন্ত দেহ পাওয়া যায়।  সিআইডি আধিকারিকরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।  কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করা হয়েছে।  নিহতের স্ত্রীর দাবী, লালন শেখকে খুন করা হয়েছে।  যদিও আদালত সিবিআইকে সুরক্ষা দিয়েছে।  আদালত বলেছে সিআইডি সিবিআইয়ের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে পারে না।  তবে, কঠোর ব্যবস্থা না নেওয়া সত্ত্বেও, রাষ্ট্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা তদন্ত প্রক্রিয়া এগিয়ে নিতে এবং লালনের মৃত্যুর রহস্য উদঘাটনে মরিয়া।




অন্যদিকে, সিবিআই হেফাজতে অস্বাভাবিকভাবে মারা যাওয়া লালন শেখের বাড়িতে গিয়েছিলেন বীরভূমের তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায়।  লালনের স্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছে, সঙ্গে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন।  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে লালনের স্ত্রী সম্পর্কে তথ্য দেওয়ার আশ্বাসও দিয়েছেন শতাব্দী।  শতাব্দীর দাবী, লালনের পরিবার তাঁর বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করছে তা গুরুতর।  তাঁর অভিযোগ, লালন ছাড়াও সিবিআই কর্তারা লালনের স্ত্রীকেও মারধর করেন।  শতাব্দী বলেছেন, “যতদূর যেতে পারি আমি এটা নিয়ে যাব।  আমি দিদি আর অভিষেকের সাথে কথা বলব।  সব রকম ভাবে পরিবারের পাশে আছি।" শতাব্দী বলেন, “আমি তাকে জিজ্ঞেস করলাম, আপনি কি দলের পক্ষে কথা বলছেন? তিনি আমাকে বলেছিলেন যে তিনি নিজের কথা বলছেন।  এখানে পার্টি কোনও ব্যাপার না।"



 বগটুই খুনের মামলার অভিযুক্ত লালন শেখ ১২ ডিসেম্বর সিবিআই হেফাজতে মারা যান।  রামপুরহাটের অস্থায়ী সিবিআই ক্যাম্পের ভিতর থেকে উদ্ধার হল লালন শেখের ঝুলন্ত দেহ।  সিবিআইয়ের দাবী, লালন আত্মহত্যা করেছেন।  তবে লালন শেখকে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তার স্ত্রী।  আদালতের নির্দেশে লালন শেখের মৃত্যুর তদন্ত করছে সিআইডি।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad