প্রেসিডেন্সিতে সরস্বতী পুজোর অনুমতি নেই, আন্দোলনে নামল তৃণমূল ছাত্র পরিষদ - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Sunday, 22 January 2023

প্রেসিডেন্সিতে সরস্বতী পুজোর অনুমতি নেই, আন্দোলনে নামল তৃণমূল ছাত্র পরিষদ



 সরস্বতী পূজার আয়োজন করতে দেওয়া হয়নি প্রেসিডেন্সি ইউনিভার্সিটির তৃণমূল ছাত্র পরিষদ।  এ নিয়ে  শুরু হয়েছে আন্দোলন।  বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সরস্বতী পুজোর দাবী জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিলেও অনুমতি মেলেনি তৃণমূল ছাত্র পরিষদ।  তৃণমূল ছাত্র পরিষদ জানিয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এবং বামপন্থী ছাত্র সংগঠনগুলির সুবিধার্থে পুজোর অনুমতি দিচ্ছে না।



 তবে আধিকারিকদের দাবী, প্রেসিডেন্সি ইউনিভার্সিটি ডিরোজিয়ান আদর্শে বিশ্বাসী।  তাই এখানে কোনও ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়া যাবে না। সরস্বতী পূজা ২৬ জানুয়ারি।  তৃণমূল ছাত্র পরিষদ (TMCP) প্রেসিডেন্সি ইউনিভার্সিটির দুই শতাব্দীর ইতিহাস পাল্টে ক্যাম্পাসে সরস্বতী পুজো করতে চায়।



 প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা বলেছেন যে সরস্বতী পূজার অনুমতির জন্য ছাত্রদের ডিন অরুণকুমার মাইতিকে বেশ কয়েকটি চিঠি ইমেল করা হয়েছিল, কিন্তু প্রতিবার তিনি চিঠিতে 'কন্টেন্ট যাচাই করা হয়নি' লিখেছেন।  অন্য কথায়, পূজার অনুমতি দেওয়া হয়নি।  এরপরই উত্তেজিত হয়ে পড়ে শিক্ষার্থীরা।  প্রেসিডেন্সির তৃণমূল ছাত্র পরিষদ ইউনিট তার ফেসবুক পেজে লিখেছে, “শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সরস্বতী পূজা হবে, কোনও নেতিবাচক মতামত থাকতে পারে না।  কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে দেবী সরস্বতীর পুজো করা সম্ভব নয়।  আমাদের ছাত্রদের ডিন বলেছে।" আধিকারিকরা বলছেন, প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় একটি ধর্মনিরপেক্ষ ক্যাম্পাস।  তিনি অভিযোগ করেন, আধিকারিকরা ধর্মনিরপেক্ষতার মানে জানেন না।  অর্থাৎ প্রত্যেক ধর্মের মানুষ তাদের নিজস্ব রীতিনীতি ও অনুষ্ঠান পালন করতে পারবে।



প্রেসিডেন্সির তৃণমূল ছাত্র পরিষদ শাখার সম্পাদক অরিত্র মণ্ডল অনুমতি না দেওয়ার জন্য বামপন্থী ছাত্র সংগঠনের দিকে আঙুল তুলেছেন।  তাঁর কথায়, “তারা কি ধর্মনিরপেক্ষ কমপ্লেক্সের আড়ালে বাম সংগঠনের চাপের কাছে নতি স্বীকার করেছে?  কারণ আমরা ইতিহাসে এমন উদাহরণ দেখেছি, যেখানে সুভাষ চক্রবর্তীকে সিপিএম পার্টি থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল, কারণ তিনি তারাপীঠে পুজো দিতে গিয়েছিলেন।  আসলে বামপন্থী একনায়কত্বের ইতিহাস আছে।  আমি প্রত্যেককে বলি যে তার দিন শেষ।  সে আর ফিরবে না।  তাদের অযৌক্তিক মানসিকতা, কারণহীন কর্মকে সমর্থন করা বন্ধ করুন।"  ক্যাম্পাসে পূজা করতে না দিলে বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটে পূজা দেবেন বলে ঘোষণা দেন তিনি।



 এদিকে, প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের এসএফআই ইউনিটের সভাপতি আনন্দরূপা বাম ছাত্র সংগঠনের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে বলেছেন, "এটি সম্পূর্ণভাবে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত।  আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় ডিরোজিওর আদর্শ অনুসরণ করে।  এখানে কোনও পুজো নয়।  সেই রীতি অনুযায়ী এবার অনুমতি দেওয়া হয়নি।”

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad