গবেষণা! মানুষের অস্তিত্ব বিলীনের রহস্য - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Sunday 15 October 2023

গবেষণা! মানুষের অস্তিত্ব বিলীনের রহস্য

  





গবেষণা! মানুষের অস্তিত্ব  বিলীনের রহস্য



প্রেসকার্ড নিউজ ওয়ার্ল্ড ডেস্ক, ১৫অক্টোবর : এই প্রশ্নটি কি কখনও আপনার মনে এসেছে,যে পৃথিবীর শেষ কবে হবে এবং পৃথিবীতে বসবাসকারী সমস্ত মানুষ কীভাবে মারা যাবে? না চাইলেও এমন প্রশ্ন আমাদের মনে অনেক সময় এসে থাকে।


মানুষের মৃত্যু নিয়ে অনেক ধরনের দাবি করা হয়।  কিন্তু এবার এক চমকপ্রদ দাবি করলেন বিজ্ঞানীরা।  মানুষের অস্তিত্বের অবসানের তারিখ প্রকাশ করেছেন বিজ্ঞানীরা।


 ব্রিস্টল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা একটি প্রতিবেদন তৈরি করেছেন।  এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে কখন মানুষ মারা যাবে? বিজ্ঞানীরা বলছেন, মানুষের মৃত্যু হতে এখনও অনেক সময় বাকি।  ২৫ কোটি বছর পরে মানুষের অস্তিত্ব বিলুপ্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ব্রিস্টল বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র গবেষণা সহযোগী ও লেখক ডক্টর আলেকজান্ডার ফার্নসওয়ার্থ বলেছেন, ক্রমাগত ক্রমবর্ধমান তাপমাত্রা এবং অতিরিক্ত তাপের কারণে মানুষ মারা যাবে।  যাইহোক, অতিরিক্ত তাপও সুপারমহাদেশ তৈরি করবে এবং আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাত ঘটাবে।


 ডঃ ফার্নসওয়ার্থ বলেন, ভবিষ্যৎ অনেকটাই অন্ধকার দেখাচ্ছে।  আগামী সময়ে কার্বন ডাই অক্সাইডের মাত্রা আজকের চেয়ে দ্বিগুণ হবে।  শুধু তাই নয়, সূর্য থেকে প্রায় ২.৫ শতাংশ বেশি বিকিরণ নির্গত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।  এটি দাবি করা হচ্ছে যে গ্রহের বেশিরভাগ অংশে ৪০-৭০C এর মধ্যে তাপমাত্রার সম্মুখীন হতে পারে।  তিনি বলেছিলেন যে নতুন উদীয়মান সুপারমহাদেশে তিনগুণ বেশি প্রভাব পড়বে, যেমন গরম সূর্য, বায়ুমণ্ডলে বেশি CO২, মহাদেশীয় প্রভাব এবং গ্রহের বেশিরভাগ অংশে তীব্র তাপ ইত্যাদি।  এর খারাপ পরিণতিও হবে স্তন্যপায়ী প্রাণীদের পরিবেশে খাদ্য ও পানির উৎস কমে যাবে।


 বিজ্ঞানীরা বলছেন, তাপমাত্রা ৪০ থেকে ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকায় তাপ এত বেশি হবে যে মানুষ তা সহ্য করতে পারবে না।   এই সমস্যাটি প্রতিরোধ করার একটি উপায় রয়েছে এবং সেই উপায়টি হল জীবাশ্ম জ্বালানীর ব্যবহার বন্ধ করা।  কারণ জীবাশ্ম জ্বালানির ক্রমবর্ধমান ব্যবহারে মানুষের জীবন দিন দিন বিপন্ন হয়ে উঠছে।  জীবনের বছরগুলো কমে আসছে।  আমরা যদি শীঘ্রই মানব বিলুপ্তি বন্ধ করতে চাই তবে আমাদের জীবাশ্ম জ্বালানি ব্যবহার বন্ধ করতে হবে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad