কোলাজেনের অভাবে পড়তে পারেন বড় সমস্যায়! জেনে নিন বাঁচার উপায় - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Saturday, 14 May 2022

কোলাজেনের অভাবে পড়তে পারেন বড় সমস্যায়! জেনে নিন বাঁচার উপায়


শরীরকে সুস্থ ও সুন্দর রাখতে শরীরের মধ্যে সব ধরনের পুষ্টির ভারসাম্য রাখা খুবই জরুরি।  শরীরে প্রোটিনের অভাবের কারণে, আপনার কেবল পেশীগুলির মারাত্মক ক্ষতি হয় না, এর ফলে আপনার শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে।  একইভাবে শরীরে কোলাজেনের ঘাটতি থাকলেও অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।  কোলাজেন আসলে এক ধরনের প্রোটিন যা ত্বকের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।  ত্বককে তরুণ ও সুন্দর রাখার পাশাপাশি হাড়, পেশী, নখ ও তরুণাস্থির জন্যও কোলাজেন খুবই গুরুত্বপূর্ণ।  বয়স বাড়ার সাথে সাথে শরীরে কোলাজেনের পরিমাণ কমতে থাকে।  এ কারণে এর প্রভাব আপনার ত্বকে দেখা যায়।  এর কারণে, আপনার ত্বক কুঁচকে যেতে পারে, আপনার হাড়গুলি দুর্বল হতে শুরু করে এবং জয়েন্টগুলিতে অনেক ধরণের সমস্যা দেখা দেয়।  একই সময়ে, কিছু মানুষের মধ্যে, অল্প বয়সে কোলাজেনের অভাব দেখা দেয়।  আসলে ভারসাম্যহীন খাদ্যাভ্যাস, জীবনযাত্রা এবং শরীরের স্বাস্থ্যগত অবস্থাই এর পেছনে দায়ী।  আসুন জেনে নেই শরীরে কোলাজেনের অভাবে উপসর্গ, কারণ, সমস্যা এবং ঘাটতি পূরণের উপায়।


 কোলাজেন কি?  


 কোলাজেন আসলে শরীরে পাওয়া একটি প্রোটিন যা শরীরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে তৈরি হয়।  কোলাজেন শরীরের প্রায় এক তৃতীয়াংশ প্রোটিন তৈরি করে।  শরীরে উপস্থিত কোষগুলোকে সুস্থ ও স্থিতিস্থাপক রাখতে শরীরে সুষম পরিমাণে কোলাজেন থাকা প্রয়োজন।  শরীরে কোলাজেনের উৎপাদন কম হলে এর ফলে অনেক গুরুতর সমস্যা শুরু হয়।  শরীরে কোলাজেনের ঘাটতি দেখা দিলেই এর উৎপাদনও কমতে শুরু করে।  আসলে এর প্রক্রিয়াটি এমন যে শরীরে কোলাজেনের অভাব হলে এর উৎপাদনও কম হবে।  এমন পরিস্থিতিতে ভারসাম্য বজায় রাখতে খাদ্যাভ্যাস ও জীবনযাত্রার বিশেষ যত্ন নেওয়া উচিত।

 

 শরীরে কোলাজেনের অভাবের লক্ষণ:


 শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে কোলাজেনের উপস্থিতির সাথে আপনার ত্বক সুস্থ এবং তারুণ্যময় দেখায়।  এ ছাড়া শরীরের অনেক অংশ ঠিকমতো কাজ করে।  শরীরের জয়েন্টগুলোকে একত্রে ধরে রাখতেও কোলাজেন প্রয়োজন।  কোলাজেন শরীরে টেন্ডন, চর্বি, জয়েন্ট এবং লিগামেন্ট ইত্যাদিতে উপস্থিত থাকে।  কোলাজেনের পরিমাণ কম হলে শরীরের কোলাজেনযুক্ত কোষগুলো ঠিকমতো কাজ করতে পারে না, যার কারণে অনেক সমস্যা হতে পারে।  শরীরে কোলাজেনের পরিমাণ কম হলে এই লক্ষণগুলো দেখা দেয়।


 ত্বকে ব্রণ ও বলিরেখার সমস্যা।


 জয়েন্টে ব্যথা বৃদ্ধি


 চেহারায় বয়সের প্রভাব দেখা যায়।


 ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা হ্রাস।


 ত্বক ঢিলা হয়ে যাওয়া।


 বলিরেখা বাড়ে।


 চুল পড়ার সমস্যা।


 জয়েন্ট সমস্যা।


কোলাজেনের অভাবের প্রভাব:


 কোলাজেন শরীরের একটি প্রয়োজনীয় প্রোটিন যা ত্বককে সুস্থ ও তরুণ রাখার পাশাপাশি শরীরের অনেক অংশকে সুস্থ রাখতে কাজ করে।  কোলাজেনকে সাধারণত শরীরের সিমেন্টও বলা হয় যা শরীরকে ভালোভাবে সংযুক্ত রাখে।  কোলাজেনের অভাব খাদ্যাভ্যাস এবং জীবনযাত্রার ব্যাঘাতের কারণে হতে পারে এবং কিছু রোগও হতে পারে।  শরীরে কোলাজেনের অভাব হলে আপনি এই সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন।


 ত্বক সম্পর্কিত সমস্যা যেমন ব্রণ, ব্রণ ইত্যাদি বৃদ্ধি।


 পেশী দুর্বলতার সমস্যা।


 চুল পড়া ও চুল পড়ার সমস্যা।


 জয়েন্টে ব্যথা এবং শক্ত হয়ে যাওয়া।


 হাড় দুর্বল হয়ে যাওয়া।


 পাচনতন্ত্রের সাথে সম্পর্কিত সমস্যা।


 কোলাজেনের ঘাটতি প্রতিরোধের টিপস:


 যখন শরীরে কোলাজেনের অভাব হয়, তখন আপনি খাদ্যাভ্যাস এবং জীবনযাত্রায় পরিবর্তন করে উপকার পান।  কোলাজেন শরীরের এক-তৃতীয়াংশ প্রোটিন তৈরি করে।  শরীরে কোলাজেনের পরিমাণ কমে গেলে এর উৎপাদনও ক্ষতিগ্রস্ত হয়।  কোলাজেনের ঘাটতি এড়াতে, আপনাকে একটি কোলাজেন-বর্ধক খাদ্য এবং একটি স্বাস্থ্যকর জীবনধারা অনুসরণ করা উচিত।  অনেক গবেষণা এবং গবেষণা নিশ্চিত করে যে যখন শরীরে কোলাজেনের অভাব হয়, তখন আপনার ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া উচিত।  ভিটামিন সি কোলাজেন গঠনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।  এছাড়াও, ধূমপান বন্ধ করে এবং একটি স্বাস্থ্যকর জীবনধারা অনুসরণ করে আপনি কোলাজেনের ঘাটতিও এড়াতে পারেন।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad