শ্রবণশক্তি হ্রাসের আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Saturday, 28 May 2022

শ্রবণশক্তি হ্রাসের আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা


প্রায়শই এমন হয় যে টিভির ভলিউম খুব জোরে হলেও শ্রবণশক্তি খুব কম হয়।  এ ছাড়া অনেক সময় কেউ চিৎকার করে আপনাকে কিছু না বলা পর্যন্ত আপনি কিছুই শুনতে পান না।  যদি এটি আপনার সাথে প্রায়শই ঘটে থাকে তবে এটিকে গুরুত্ব সহকারে নেওয়ার সময় এসেছে।  এটি শ্রবণশক্তি হ্রাসের একটি সাধারণ লক্ষণ কারণ এটি শ্রবণশক্তি হ্রাসের শুরু হতে পারে।  আপনি যদি এই ধরনের লক্ষণগুলি ঘন ঘন অনুভব করেন, তাহলে আপনার এখনই এটি সম্পর্কে সতর্ক হওয়া উচিত এবং শ্রবণশক্তি হ্রাস এড়াতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।  সাধারণত কানের ভেতরের সূক্ষ্ম কোষগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হতে শুরু করলে শ্রবণশক্তি কমে যাওয়ার সমস্যা হয়।


 আয়ুর্বেদিক চিকিৎসক এবং পঞ্চকর্ম বিশেষজ্ঞ ডাঃ অঙ্কিতের মতে, অনেক লাইফস্টাইল অভ্যাস আপনাকে বধিরতার শিকার করে তুলতে পারে।  কিন্তু আয়ুর্বেদের সাহায্যে সহজেই বধিরতার সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।  এই নিবন্ধে, আমরা আপনাকে শ্রবণশক্তি হ্রাসের আয়ুর্বেদিক চিকিত্সা বলছি।


 প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক শ্রবণশক্তি হারানোর কিছু সাধারণ কারণ


 কানে হেডফোনের অত্যধিক ব্যবহার এবং খুব উচ্চ ভলিউমে গান শোনা।


 অনেক কোলাহলে সময় কাটানো।


 এমন জায়গায় কাজ করা যেখানে প্রচুর শব্দ হয়


 পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করবেন না।  কান সুস্থ রাখতে ভিটামিন B12 গ্রহণ করা উচিত।  এ ছাড়া পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম খেতে হবে।  কানের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে আয়রন সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে।


 এমনকি যদি আপনার পরিবারের কারো শ্রবণশক্তি হ্রাসের সমস্যা থাকে, তবুও আপনার চেকআপ করা উচিত, এটি আপনার শ্রবণশক্তি হ্রাসের ঝুঁকি বাড়ায়।


 অনেক ওষুধ আছে যা শ্রবণশক্তি হ্রাসের ঝুঁকি বাড়াতে পারে, তাই ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কোনো ওষুধ খাবেন না।


 মানসিক চাপ বৃদ্ধির কারণেও বধিরতা দেখা দিতে পারে।  আপনার পুনরুদ্ধারমূলক যোগব্যায়াম করা উচিত, এটি কানের স্বাস্থ্যের জন্য ভাল বলে মনে করা হয়।


 উচ্চ রক্তচাপের কারণে কানের ভেতরের কোষ ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং একইভাবে ডায়াবেটিসের কারণেও বধিরতার সমস্যা হতে পারে।


 অত্যধিক ধূমপান বা অ্যালকোহল সেবন শ্রবণশক্তি হ্রাস করতে পারে, তাই এটি এড়িয়ে চলুন।


 শ্রবণশক্তি হ্রাসের আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা কি? 


 কর্ণ প্রতিসরণ: এই থেরাপিতে ২-৩ ফোঁটা গরম তেল কানে দেওয়া হয় এবং ধীরে ধীরে কানে মালিশ করা হয়।  কানের লতিতে চাপ দিন এবং কানের বাইরের অংশে কিছুক্ষণ ম্যাসাজ করুন।


 কর্ণ পুরাণ: এটি একটি তেল থেরাপি যাতে কানের চিকিৎসার জন্য একটি ছোট উচ্চতা থেকে ভিতরের কানে তেল ঢেলে দেওয়া হয়।


 শান্তিতে বসা: চুপচাপ বসে থাকা শুধু কানেরই উন্নতি করে না, মানসিক স্বাস্থ্যেরও উন্নতি করে।  আয়ুর্বেদ এমন অভ্যাসগুলি বর্ণনা করে যা কানের স্বাস্থ্যকে উন্নীত করতে এবং জীবনের মান উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে।


 কর্ণ ধূপনাম: একটি আয়ুর্বেদিক পদ্ধতি যা কানের বিভিন্ন রোগের চিকিৎসায় উপকারী যেমন কানে চুলকানি, কানে ব্যথা, ছত্রাক সংক্রমণ ইত্যাদি।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad