ঘুম নিয়ন্ত্রণের উপায় - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Sunday, 29 May 2022

ঘুম নিয়ন্ত্রণের উপায়


এই ঋতুটি এতটাই অলসতা নিয়ে আসে যে মাঝে মাঝে আমরা ভাবতে শুরু করি কি হচ্ছে! ল্যাপটপের স্ক্রীনের দিকে তাকালে কখন চোখের পাতা মিটমিট করতে শুরু করে, জানা নেই। আসলে, এই ঋতুতে ক্লান্তি এবং অলসতা স্বাভাবিক। তাপমাত্রা বৃদ্ধির সাথে সাথে আমাদের শরীরে আরও শক্তির প্রয়োজন হয়। এই কারণেই সারাদিন আমাদের ঘুম আসে। কিন্তু এই সমস্যা নিরাময়যোগ্য নয়। চলুন জেনে নেওয়া যাক সেই সব ব্যবস্থা যা আপনার দিনের ঘুমকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে।


এই দিনগুলিতে আপনিও প্রচুর ঘুম পাচ্ছেন, তাই চিন্তা করবেন না, এই ধরণের সমস্যার মুখোমুখি আপনি একা নন। কিন্তু খারাপ ব্যাপার হল, দিনের বেলা একটানা ঘুমের প্রভাব আমাদের কাজেও পড়ে। হেলথশটস-এর দলটি মুম্বাইয়ের ওয়াকহার্ট হাসপাতালের নিউরোলজি কনসালটেন্ট ডাঃ পবনের সাথে এই সমস্যার কারণ এবং এটি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় সম্পর্কে কথা বলেছে। আসুন জেনে নিই ঘুম থেকে মুক্তি পেতে ডাঃ পবন কোন প্রতিকার শেয়ার করছেন-


প্রথমেই জেনে নিন গরমে দিনের বেলা ঘুম কেন হয়

ডাঃ পবন ব্যাখ্যা করেন যে গ্রীষ্মের মরসুমে দিন দীর্ঘ হয়। সূর্যের আলোও আমাদের ওপর অনেকক্ষণ পড়ে। এই প্রচণ্ড গরমের কারণে শরীরে উপস্থিত মেলাটোনিন অনেক বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। যার কারণে এই মৌসুমে আমাদের অনেক ঘুম হয়। এছাড়াও এই দিনগুলিতে আমরা যখন রোদে বের হই, তখন আমাদের শরীরের ভিতরের তাপমাত্রা বজায় রাখতে আরও বেশি পরিশ্রম করতে হয়। যার মধ্যে শরীরের প্রচুর শক্তি ব্যবহৃত হয়। এই কারণেই আমরা শীতের তুলনায় গ্রীষ্মকালে দিনের বেলা বেশি অলস বোধ করি।


তাহলে জেনে নিন ঘুম নিয়ন্ত্রণের উপায়গুলো কী কী


প্রতিদিন সময় মতো ঘুমান

আপনি যদি অনিদ্রার সমস্যায় ভুগছেন, তাহলে রাতে সময়মতো বিছানায় যাওয়ার চেষ্টা করুন। সঠিক সময়ে ঘুমালে সকালে ঘুম থেকে উঠতে সাহায্য করবে। রবিবারেও একই নিয়ম মেনে চলুন। ভারসাম্যপূর্ণ রুটিন আপনাকে দিনের ঘুম নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করবে।


নিজেকে হাইড্রেটেড রাখুন

ডিহাইড্রেশন গ্রীষ্মকালে ক্লান্তির সবচেয়ে বড় কারণ। শরীরে শক্তির অভাব এবং অলসতাও আমাদের ঘুমিয়ে পড়তে পারে। যদিও এটি সূর্যালোকের কারণে নয়। কারণ শরীরে জলের অভাব হয়। ঘুম, ক্লান্তি দূর করতে এবং সারাদিন শক্তিমান থাকার জন্য প্রচুর জল পান করুন।


ভারী খাবার এড়িয়ে চলুন

আমরা বেশিরভাগই ভারী খাবার খেয়ে শুয়ে থাকতে পছন্দ করি। খাওয়ার পর হালকা ঘুম হওয়াটাই স্বাভাবিক। কিন্তু খাবার যত ভারী হবে, ততই ঘুমের অনুভূতি বাড়ে। তাই ঘুম এড়াতে ভারী খাবার পরিহার করুন এবং অল্প পরিমাণে খান।


শুধুমাত্র স্বাস্থ্যকর পানীয় আছে

সতেজতা বজায় রাখতে অ্যালকোহল এবং ক্যাফেইনযুক্ত পানীয় এড়িয়ে চলুন। শরীরকে সতেজ ও সতেজ রাখতে জল, লেবুপাতা এবং বাটারমিল্ক জাতীয় পানীয় পান করুন। এই পানীয়গুলি আপনার শরীরের অলসতা এবং ক্লান্তি দূর করবে। সর্বদা উচ্চ ইলেক্ট্রোলাইট এবং কম চিনিযুক্ত পানীয় বেছে নিন। কোমল পানীয় থেকে দূরে থাকাই ভালো।


প্রতিদিন ব্যায়াম করুন

আপনি যদি নিয়মিত ব্যায়াম না করেন তবে আপনি অনেক ভুল করছেন। আপনি যদি নিজেকে ফিট রাখতে চান, তাহলে প্রতিদিন নির্ধারিত সময়ে ব্যায়াম করা উচিত। এতে করে আপনি সারাদিন সক্রিয় ও উদ্যমী বোধ করবেন এবং ক্লান্তি ও ঘুম আপনার থেকে দূরে থাকবে। ব্যায়াম করার সেরা সময় হল সকাল। ব্যায়াম ছাড়াও, আপনি সকালে হাঁটা এবং দৌড়াতে যেতে পারেন, শুধু মনে রাখবেন সে সময় খুব বেশি সূর্যালোক না থাকে।


রক্তচাপ পরীক্ষা করুন

অনেক সময় নিম্ন রক্তচাপও অনিদ্রার জন্য দায়ী হতে পারে। আর্দ্রতা বেশি হলে শরীরের রক্তচাপ কমে যাওয়া ক্লান্তি ও অলসতার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। তাই যখনই আপনি খুব বেশি ঘুমাবেন এবং ক্লান্ত বোধ করবেন, আপনার রক্তচাপ পরীক্ষা করুন।


ভালো ঘুম পেতে এই টিপসগুলো মনে রাখবেন

সন্ধ্যা ৬টার,

রাতের খাবারের আগে হালকা ব্যায়াম করুন, 

যেমন হাঁটতে

মানসিক চাপে থাকবেন না, 

যদি না করেন ক্লান্তির কারণে ঘুম, 

তারপর যোগব্যায়াম, 

ব্যায়াম, 

পেশী উপশমের পদ্ধতি অবলম্বন করুন। সামগ্রিকভাবে, যে কোনও উপায়ে ভাল ঘুমের চেষ্টা করুন।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad