বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে গাভাস্কারের এই ইনিংস বিশ্ব কখনও ভুলতে পারেনি! - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Tuesday, 7 June 2022

বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে গাভাস্কারের এই ইনিংস বিশ্ব কখনও ভুলতে পারেনি!


 ৭ জুন ক্রিকেট ইতিহাসে বিশেষ একটি দিন, কিন্তু ভারতীয় দল এবং অভিজ্ঞ সুনীল গাভাস্কর এটি খুব কমই মনে রাখতে চাইবেন। ১৯৭৫ সালের এই দিনে ঐতিহাসিক লর্ডস ময়দানে ওয়ানডে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ খেলা হয়। টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল ভারত ও ইংল্যান্ড। এরপর ওয়ানডে ফরম্যাটে ৫০-এর পরিবর্তে ৬০ ওভার বল করা হয়। ইংল্যান্ড 4 উইকেটে ৩৩৪ রান করে। বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভারতীয় দল ৩ উইকেটে ১৩২ রান করতে পারে। ওপেনার এবং অভিজ্ঞ সুনীল গাভাস্কার ১৭৪ বল মোকাবেলা করে অপরাজিত ফিরে গেলেও তার ব্যক্তিগত স্কোর ছিল মাত্র 36 রান।


ভারতীয় দলের তৎকালীন ম্যানেজার জিএস রামচন্দ্রও এ নিয়ে বড়সড় বক্তব্য দিয়েছেন। তিনি বলেছিলেন, 'এমন স্বার্থপর ইনিংস আমি খুব কমই দেখেছি। তখন সুনীল গাভাস্কার আমাকে বলেছিলেন যে উইকেটটি খুব ধীর ছিল শট খেলার জন্য কিন্তু এটা একটা পাগলামি। একই পিচে ৩৩৪ রানের বড় স্কোর করেছিল ইংল্যান্ড।


ওডিআই বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচটি ১৯৭৫ সালের এই দিনে অর্থাৎ ৭ জুন ইংল্যান্ড এবং ভারতের মধ্যে খেলা হয়েছিল। ইংল্যান্ডের অধিনায়কত্ব তখন মাইক ডেনেস এবং ভারতীয় দলের নেতৃত্বে ছিলেন এস ভেঙ্কটরাঘবন। এই ম্যাচে ইংল্যান্ড নির্ধারিত ৬০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ৩৩৪ রান করে। ওপেনার ডেনিস অ্যামিস সেঞ্চুরি করেন এবং ১৩৭ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন। ১৪৭ বলে ১৮টি চার মেরেছেন তিনি। তিনি ছাড়াও কিথ ফ্লেচার ৬৮ রানের অবদান রাখেন।



কিথ ১০৭ বলের ইনিংসে ৪টি চার ও ১টি ছক্কা মারেন। ৫১ রানে অপরাজিত ফিরেন ক্রিস ওল্ড। ৩০ বলে ৪টি চার ও ২টি ছক্কা মেরেছেন তিনি। ভারতের হয়ে সৈয়দ আবিদ আলী ৫৮ রানে ২ উইকেট নেন এবং মদন লাল ও মহিন্দর অমরনাথ ১-১ উইকেট পান।


ভারতীয় ইনিংসের সূচনা করেন সুনীল গাভাস্কার ও একনাথ সোলকার। ৮ রান করে জিওফ আর্নল্ডের শিকার হন একনাথ। এরপর ২২ রানের অবদান রাখেন আংশুমান গায়কওয়াদ। তিনি ৪৬ বল মোকাবেলা করে ২টি চার মারেন। গুন্ডাপ্পা বিশ্বনাথ ৫৯ বলে ৫ চারের সাহায্যে ৩৭ রান করেন। বর্তমান আইপিএল চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেলও সেই ম্যাচের অংশ ছিলেন। ৫৭ বলে অপরাজিত ১৬ রান করে ফেরেন তিনি।


ভারতীয় দল ৬০ ওভারে ৩ উইকেটে ১৩২ রান করতে পারে। সুনীল গাভাস্কারও অপরাজিত ফিরে আসেন কিন্তু ১৭৪ বল মোকাবেলা করেন এবং তার ইনিংসে মাত্র একটি চার মেরেছিলেন। ইংল্যান্ডের হয়ে ১-১ উইকেট পান পিটার লিভার, আর্নল্ড ও ক্রিস ওল্ড।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad