বর্ষা অধিবেশনে শুভেন্দু সহ বিজেপির ৫ বরখাস্ত বিধায়কের মক সমাবেশের আয়োজন - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Monday, 6 June 2022

বর্ষা অধিবেশনে শুভেন্দু সহ বিজেপির ৫ বরখাস্ত বিধায়কের মক সমাবেশের আয়োজন



বঙ্গ বিধানসভার বর্ষা অধিবেশন শুরু হচ্ছে ১০ জুন।  রাজ্যে এসএসসি নিয়োগ কেলেঙ্কারি সহ বিরোধীদলীয় নেতা শুভেন্দু অধিকারী সহ পাঁচজন বিধায়ককে সাসপেন্ড করার কারণে এই অধিবেশনে হৈচৈ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।  গত অধিবেশন চলাকালীন, শুভেন্দু অধিকারী, দীপক বর্মণ, শঙ্কর ঘোষ, মনোজ টিগ্গা এবং নরহরি মাহাতো সহ পাঁচজন বিধায়ককে বীরভূমের বগটুই গণহত্যা নিয়ে হৈচৈ-এর পরিপ্রেক্ষিতে 2022 সালের সমস্ত আসন্ন অধিবেশনের জন্য স্থগিত করা হয়েছিল।  সাসপেন্ড করা বিজেপি বিধায়করা অধিবেশন চলাকালীন মক সমাবেশের আয়োজন করতে পারেন।  বিধায়কদের সাসপেনশন প্রত্যাহার না হলে বিধানসভা বয়কটের সিদ্ধান্ত নিতে পারে বিজেপি।




 সংসদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ১০ জুন থেকে বর্ষা অধিবেশন শুরু হচ্ছে।  অধিবেশনে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিল পেশ করা হবে।  এতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য করার বিলও রয়েছে।



পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, অধিবেশন চলাকালীন অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিল পেশ করা হবে।  বিশ্ববিদ্যালয় সংশোধনী বিল, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় সংশোধনী বিলসহ সাতটি বিল আনা হবে।  এই বিলগুলির মাধ্যমে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য হিসাবে নিযুক্ত হবেন।  তিনি বলেন, বিধানসভার স্পিকার ৯ জুন সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছেন।  এই বৈঠকে সংসদের কার্যক্রমের কর্মসূচি ঠিক করা হবে।  বিরোধী দলের বিধায়কদের বৈঠকে উপস্থিত থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেছিলেন যে বিরোধী বিধায়করা বৈঠকে আসবেন বলে আশা করা হচ্ছে।  পরবর্তী করণীয় ঠিক করবেন বিধানসভার স্পিকার।



 অন্যদিকে, বাংলা বিধানসভা অধিবেশনকে সামনে রেখে কৌশল তৈরি করতে শুরু করেছে বিজেপি।  বিধানসভা থেকে বিধায়কদের সাসপেন্ড করার বিষয়টি আদালতে বিবেচনাধীন রয়েছে।  ৯ জুন স্থগিতাদেশের ওপর আদালতে শুনানি শেষে বিধানসভার বিরোধী দলের নেতা প্রতীকী অধিবেশনের (মক অ্যাসেম্বলি) বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।  শুভেন্দু অধিকারী ১০, ১৩, ১৬ এবং ১৭ জুন অনুষ্ঠিতব্য এই ৪ দিনের বিধানসভায় বিজেপি বিধায়কদের উপস্থিতি বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।  তিনি চান এই দিনে বিধায়করা সই করুক।  স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় যদি স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার না করেন, তাহলে বিজেপি বিধায়করা অধিবেশন বয়কটের পথ নিতে পারেন।  স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার না হলে বিধানসভা চত্বরে আম্বেদকরের মূর্তির সামনে একটি অস্থায়ী কার্যালয় স্থাপন করা হবে।  সেখানে প্রতীকী বিধানসভা অধিবেশন করবেন বিজেপি বিধায়করা।  অধিবেশন চলাকালীন, বিজেপি বিধায়করা এসএসসি দুর্নীতি, বিভিন্ন চাকরির পরীক্ষায় দুর্নীতি, বেকারত্ব এবং আইনশৃঙ্খলা ইস্যুতে সোচ্চার হবেন।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad