'মা হতে হবে, বন্দি স্বামীকে প্যারোল', সুপ্রিম কোর্টে দ্বারস্থ গেহলট সরকার - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Monday, 25 July 2022

'মা হতে হবে, বন্দি স্বামীকে প্যারোল', সুপ্রিম কোর্টে দ্বারস্থ গেহলট সরকার



 হাইকোর্ট সন্তান ধারণের জন্য যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত এক বন্দিকে 15 দিনের প্যারোল দিয়েছিলেন।  হাইকোর্টের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এখন সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে রাজস্থান সরকার।  রাজ্য সরকারের তরফে বিষয়টি প্রধান বিচারপতি এনভি রামান্নার সামনে রাখা হয়েছে।  প্রধান বিচারপতিকে বলা হয়েছে, হাইকোর্টের এই নির্দেশের পর এখন অনেক বন্দি প্যারোলের দাবী করছেন।  রাষ্ট্রীয় নিয়ম অনুসারে, এটি প্যারোলের জন্য শর্ত নয়।




 রাজ্য সরকারের তরফে সুপ্রিম কোর্টে বলা হয়েছে, রাজ্যের নিয়ম অনুযায়ী সন্তান নেওয়ার জন্য প্যারোল দেওয়ার কোনও স্পষ্ট নিয়ম নেই।  এরপর এই নির্দেশের কারণে সমস্যা হচ্ছে।  এই ধরনের অ্যাপ্লিকেশনের ঢের আছে। তবে, এখন সুপ্রিম কোর্ট এখন 29 জুলাই এই বিষয়ে শুনানি করবে।



এই বছরের এপ্রিল মাসে, রাজস্থান হাইকোর্টের যোধপুর বেঞ্চ তার স্ত্রীর সাথে সম্পর্ক এবং সন্তান হওয়ার জন্য যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত এক বন্দিকে প্যারোল মঞ্জুর করেছিল।  ওই রায়ে আদালত বলেছিল, গর্ভধারণ করতে না দেওয়া স্ত্রীর অধিকারের লঙ্ঘন হবে।



প্রকৃতপক্ষে, 34 বছর বয়সী নন্দলাল ভিলওয়ারাকে 2019 সালের একটি মামলায় দায়রা আদালত যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত করেছিল।  এরপর থেকে তিনি আজমির জেলে বন্দী।  তার স্ত্রী রেখা আজমিরের জেলা প্যারোল কমিটির চেয়ারম্যানের কাছে আবেদন করেছিলেন, যাতে তার স্বামীকে প্যারোল দেওয়া হয় যাতে তিনি মা হতে পারেন।




 এদিকে বিষয়টি রাজস্থান হাইকোর্টে পৌঁছায়।  সেখানে দুই বিচারপতির বেঞ্চ বলেছে, যদিও রাজ্যের প্যারোল বিধি- 'রাজস্থান প্রিজনার্স রিলিজ অন প্যারোল রুলস'-এ স্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্কের জন্য বন্দীকে মুক্তি দেওয়ার কোনও সুস্পষ্ট বিধান নেই, কিন্তু মহিলার অধিকারের পরিপ্রেক্ষিতে আমরা বন্দীকে প্যারোলের নির্দেশ দিই।




 ওই নারীর বন্দী স্বামীকে প্যারোল দেওয়ার সময় আদালত প্যারোলের নিয়মের কথাও মাথায় রেখেছিলেন।  আদালত বলেছিল, প্যারোলের নিয়মে এমন কোনও নিয়ম নেই।  তবে মহিলাকে স্বস্তি দিতে গিয়ে আদালত বলেছিল যে স্ত্রীর যৌন ইচ্ছা এবং মানসিক চাহিদা বিবাহিত জীবনের সাথে জড়িত।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad