চিট ফান্ড কাণ্ড: রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ইডি-সিবিআই হানা - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Monday, 5 September 2022

চিট ফান্ড কাণ্ড: রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ইডি-সিবিআই হানা



সোমবার সকাল ৭টা থেকে কলকাতা ও সোদপুরের বেশ কয়েকটি জায়গায় অভিযান চালাচ্ছে সিবিআই এবং ইডি আধিকারিকরা।দক্ষিণ কলকাতার রানিকুটিরে এক ব্যক্তির বাড়িতে অভিযান চালায় সিবিআই।  অন্যদিকে, সোদপুরের রাজেন্দ্রপল্লী এলাকার একটি বাড়িতে হানা দেন ইডি আধিকারিকরা।  সূত্রের খবর, সম্পূর্ণ গোপনীয়তা বজায় রেখে সকাল থেকেই এই দুটি স্থানেই অভিযান চালাচ্ছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।  জানা গিয়েছে, সোদপুরে সুব্রত মালাকার নামে এক ব্যক্তির বাড়িতে হানা দিচ্ছে ইডি।  ব্যাঙ্ক কর্মীদের নিয়ে সুব্রতর বাড়িতে হানা দিচ্ছে তদন্তকারী সংস্থা।




গত দুদিন ধরে চিটফান্ড মামলায় রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় তৎপরতা শুরু করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।  রবিবার সকালে হালিশহরে বিজপুরে তৃণমূল বিধায়ক সুবোধ অধিকারীর বাড়িতে হানা দেন সিবিআই আধিকারিকরা।  কলকাতার পাইকাপাড়ায় সুবোধ অধিকারীর ফ্ল্যাটেও তল্লাশি চালায় তদন্তকারীরা।



 রবিবারও লেকটাউনের কাছে দক্ষিণানি ও বিটি রোডে ফ্ল্যাট তল্লাশি করেছিল সিবিআই।  বিধায়ক সুবোধ অধিকারীর ভাই ও কাঁচরাপাড়া পৌরসভার মেয়র কমল অধিকারীর বাড়িতেও তল্লাশি চালানো হয়।  এর আগে, চিট ফান্ড মামলায় হালিশহর চেয়ারম্যান ও তৃণমূল নেতা রাজু সাহনির বাড়ি থেকে নগদ প্রায় ৮০ লক্ষ টাকা উদ্ধার করা হয়েছিল।  এ ঘটনায় তাকে আটক করা হয়েছে।  সূত্রের দাবী, এর ভিত্তিতেই সুবোধ অধিকারীর বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়।  এই প্রসঙ্গে সোমবার কলকাতা ও সোদপুর এলাকায় দুই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার অভিযানে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।



হালিশহরের চেয়ারম্যান রাজু সাহনিকে বাড়ি থেকে লক্ষাধিক টাকা উদ্ধারের পর গ্রেফতার করেছিল সিবিআই।  এর পরে কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার আধিকারিকরা তাঁর ঘনিষ্ঠ বিজপুর বিধায়ক সুবোধ অধিকারীর বাড়িতেও হানা দেন।  তাকে প্রায় ১০ ঘণ্টা জেরা করা হয়।  পাইকপাড়ায় সুবোধ অধিকারীর ফ্ল্যাটে লাগাতার তল্লাশি চালানো হয়।  এরপর তদন্তকারী আধিকারিক সুবোধ অধিকারীর ডেপুটি ও সিকিউরিটি গার্ডকে সিজিও কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন।  কিছু জিজ্ঞাসাবাদের পরে, উভয় নিরাপত্তারক্ষীকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল, তবে উপ সহকারী রবিন্দর সিংকে সেখানে রাতভর রাখা হয়েছিল।  সোমবার সকাল পর্যন্ত জেরা চলে। 


 সিবিআই সূত্রে জানা গিয়েছে, বিজপুরের বিধায়ক সুবোধ অধিকারী সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পেতে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার আধিকারিকরা রাবিন্দরকে জেরা করেছিলেন।  এর পাশাপাশি রাজু সাহনির বিষয়ে সুবোধ অধিকারীর কাছ থেকে গোয়েন্দাদের কাছে পাওয়া তথ্য যাচাই করা হচ্ছে।  রবিন্দর সিং সহ সিবিআইয়ের একটি বড় দল সিজিও থেকে সকাল ৬:৫৪ নাগাদ চলে যায়।  তারপর তারা রানিকুঠির বাড়িতে পৌঁছেছে এবং তল্লাশি চলছে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad