হিজাবের বিরুদ্ধে আন্দোলন তীব্র! গুলিতে নিহত ৩ - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Wednesday, 21 September 2022

হিজাবের বিরুদ্ধে আন্দোলন তীব্র! গুলিতে নিহত ৩



 হিজাবের বিরুদ্ধে মহিলাদের আন্দোলন। রণক্ষেত্র ইরান।  তেহরান ছাড়াও অনেক শহরে নারী আন্দোলন তীব্র হয়েছে এবং এরই মধ্যে কুর্দিস্তানে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে তিনজন মারা গেছে।  মাহসা আমিনী নামে 22 বছর বয়সী মেয়েটি, স্বাস্থ্যের অবনতির কারণে পুলিশ হেফাজতে মারা গিয়েছিল, সে এই প্রদেশের বাসিন্দা ছিল।  এমতাবস্থায় কুর্দিস্তানে আন্দোলন তীব্রতর হয়েছে।  ইরানে নারীদের জন্য কঠোর পোশাকের নিয়ম রয়েছে।  1979 সালের ইরানী বিপ্লবের পর এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল।  যদিও 40 বছর আগে অন্যান্য দেশের মতো ইরানেও নারীদের অনেক স্বাধীনতা ছিল।




 তেহরানে জড়ো হওয়া শত শত নারী ও পুরুষকে সরিয়ে দিতে পুলিশ লাঠিচার্জ ও কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করেছে।  ইরানের সংবাদ ইরনা জানায়, কুর্দিস্তানে পুলিশের গুলিতে তিনজন নিহত হয়েছেন।  তবে রাজ্যের গভর্নর বলছেন, এসব মৃত্যু পুলিশের গুলিতে নয়, এর জন্য দায়ী 'সন্ত্রাসী গোষ্ঠী'।  ইরানি কর্তৃপক্ষ বিক্ষোভকারীদের বিশ্বাসঘাতক এবং সন্ত্রাসী হিসাবে চিহ্নিত করেছে।  কুর্দিস্তানের সাগেজে হিজাব পরার কারণে মাহসা আমিনিকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছিল এবং তার স্বাস্থ্যের অবনতি হয়েছিল।  তিন দিন কোমায় থাকার পর আমিনী মারা যান।



 আমিনির মৃত্যুর পর থেকে ইরানে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে এবং কয়েক দশক পর এমন ব্যাপক আন্দোলন দেখা যাচ্ছে।  চুল কেটে ও হিজাব পুড়িয়ে বিক্ষোভ করেছে শত শত নারী।  তেহরান ও তাসনিমের মতো শহরের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থীরা বিপুল সংখ্যক সমাবেশ করছে।  শুধু তাই নয়, এখন এই আন্দোলন পৌঁছে গেছে তাবরিজ ও হামদানের মতো শহরেও।  নারীরাও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও শেয়ার করছেন, যাতে তাদের স্বৈরাচার মুর্দাবাদ ও আজাদির স্লোগান দিতে শোনা যায়।  একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে যে একজন মহিলা একটি গাড়ির বনেটে বসে তার হিজাবে আগুন ধরিয়ে দিচ্ছেন৷ ভিডিওটির সত্যতা যাচাই করে নি প্রেসকার্ড নিউজ।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad