'একশো শতাংশ ধর্ষক তৃণমূলের', রাহুলের মন্তব্যে তরজা - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Friday, 28 October 2022

'একশো শতাংশ ধর্ষক তৃণমূলের', রাহুলের মন্তব্যে তরজা


'রাজ্যের একশো শতাংশ ধর্ষক তৃণমূল কংগ্রেসের', ভাইফোঁটায় মহিলাদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে গিয়ে এমনই বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা। তিনি অভিযোগ করেন, মুখ্যমন্ত্রীর সমর্থনে রাজ্যে ধর্ষণের ঘটনা বেড়েছে। আর বিজেপি নেতার এই মন্তব্য ঘিরেই শুরু হয়েছে জোর তরজা। পাল্টা আক্রমণ শানিয়েছে রাজ্যের শাসক শিবিরও। 


বৃহস্পতিবার কলকাতায় বিজেপি অফিসে 'ভাই ফোঁটা' পালনের পর সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হব বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা। সেই সময় তিনি বলেন, "একজন মহিলা মুখ্যমন্ত্রী নারীর প্রতি সহিংসতার দিক থেকে রাজ্যকে প্রথম স্থানে এনেছেন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ধর্ষণ একটি ছোট ঘটনা। তিনি টাকা দিয়ে ধর্ষণের মামলা সমাধান করতে চান। এমন পরিস্থিতিতে ধর্ষণের ঘটনা বাড়বে, নাকি কমবে? রাজ্যের একশো শতাংশ ধর্ষক তৃণমূলের, অন্য কোনও দলের কেউ নয়।"


রাহুল সিনহা আরও বলেন, 'এই মুহূর্তে বাংলায় মহিলাদের শক্তিশালী ভাইদের প্রয়োজন কারণ রাজ্য মহিলাদের শোষণের ক্ষেত্রে এক নম্বরে রয়েছে। 


অন্যদিকে, রাহুল সিনহাকে কটাক্ষ করে রাজ্যের অর্থমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য বলেন, "তৃণমূল কংগ্রেসকে অপমান করা বিরোধী দলগুলির জন্য আমি শুভকামনা জানাই। বোন হিসেবে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের দীর্ঘায়ু ও সুস্থ জীবন কামনা করছি। আমি আশা করি, তারা আমাদের অপমান করলেও তাদের উন্নতি হবে।"


চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য আরও বলেন, 'দিদির শাসনে বাংলা কতটা নিরাপদ তার প্রমাণ পাওয়া গেছে কেন্দ্রীয় সরকারের একটি রিপোর্টে। যারা আজেবাজে কথা বলছেন, তাদের উচিৎ বিজেপি শাসিত রাজ্যে গিয়ে ঘটনা যাচাই করা। কেন্দ্রীয় প্রতিবেদনে প্রকাশ করা হয়েছে যে, কলকাতা দেশের সবচেয়ে নিরাপদ শহর এবং ভারতের সবচেয়ে অনিরাপদ শহর দিল্লী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হাতে। তাই বিজেপি নেতাদের এই ধরনের বক্তব্য বিরোধীদের বিরোধ ছাড়া আর কিছুই নয়।"


রাজ্যের সংসদীয় মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় বলেন, “আমি এই ধরনের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানাতে চাই না। আমি শুধু বলতে চাই, অভিযোগ করার আগে বিজেপির তথাকথিত ডাবল ইঞ্জিন সরকারের দিকে নজর দেওয়া উচিৎ। ন্যাশনাল ক্রাইম ব্যুরোর রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, মহিলাদের বিরুদ্ধে সহিংসতার বেশিরভাগ ঘটনা ঘটে বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতে।" 

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad