মার্গশীর্ষ অমাবস্যা অত্যন্ত পুণ্যময়, পূর্বপুরুষদের খুশি করতে এই কাজটি করুন - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Thursday, 17 November 2022

মার্গশীর্ষ অমাবস্যা অত্যন্ত পুণ্যময়, পূর্বপুরুষদের খুশি করতে এই কাজটি করুন

 




 মার্গশীর্ষ মাসের অমাবস্যা তিথি মার্গশীর্ষ অমাবস্যা বা অগ্রহায়ন অমাবস্যা নামে পরিচিত। হিন্দু ধর্মে এই অমাবস্যার বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। আসুন জেনে নেই পূজার সঠিক সময় ও গুরুত্ব। 


 হিন্দু ধর্মে অমাবস্যার বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে। প্রতি মাসের কৃষ্ণপক্ষের শেষ দিন অমাবস্যা তিথি। প্রতিটি অমাবস্যার নিজস্ব গুরুত্ব রয়েছে। মার্গশীর্ষ মাসের কৃষ্ণপক্ষের অমাবস্যা মার্গশীর্ষ অমাবস্যা বা অগ্রহায়ন অমাবস্যা নামে পরিচিত। এই দিনে পূর্বপুরুষদের আত্মতৃপ্তির জন্য তর্পণ, পিণ্ডদান ও শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠান করা হয়। এই দিনে স্নান দানেরও বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে। 


শাস্ত্রমতে, ভগবান শ্রী কৃষ্ণ গীতার ঐশ্বরিক জ্ঞান দিয়েছিলেন, তাই এই মাসের অমাবস্যাকে অত্যন্ত উপকারী ও পুণ্যময় বলে মনে করা হয়। এই দিনটি পিতৃপুরুষদের পূজার জন্য বিশেষ বলে মনে করা হয়। এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে এই দিনে পূজা ও উপবাস করলে পিতৃপুরুষরা প্রসন্ন হন এবং পিতৃপক্ষের দোষ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। শুধু তাই নয়, এই দিনে উপবাস করলে রাশিফলের দোষ দূর হয় বলেও বিশ্বাস করা হয়। জ্যোতিষ শাস্ত্র অনুসারে, এই অমাবস্যায় গঙ্গা স্নানেরও বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে। আসুন জেনে নিই এই অমাবস্যার তিথি ও গুরুত্ব সম্পর্কে। 


মার্গশীর্ষ অমাবস্যা তারিখ ২০২২


হিন্দু ক্যালেন্ডার অনুসারে, ২৩ নভেম্বর বুধবার পালিত হবে মার্গশীর্ষ অমাবস্যা। বলা হয়েছে যে এই দিন অমাবস্যা তিথি সকাল ০৬:৫৩ থেকে শুরু হবে এবং ভোর ৪:২৬-এ শেষ হবে।


মার্গশীর্ষ অমাবস্যা ২০২২ এর শুভ সময়


পঞ্জিকা অনুসারে মার্গশীর্ষ মাসের অমাবস্যা তিথিতে অনেক শুভ সময় তৈরি হচ্ছে। এদিন অভিজিৎ মুহুর্তা হবে সন্ধ্যা ০৫.২২ থেকে ০৫.৪৯ পর্যন্ত। 


অমৃত কাল- অমাবস্যার দিন অমৃত কাল হবে দুপুর ১.২৪ থেকে দুপুর ২.৫৪ পর্যন্ত। 


সর্বার্থ সিদ্ধ যোগ- যে কোনো কাজে সাফল্যের জন্য সর্বার্থ সিদ্ধ যোগ সেরা বলে বিবেচিত হয়। এই দিন রাত ৯.৩৭ টা থেকে ২৪ নভেম্বর সকাল ০৬.৫১ টা পর্যন্ত এই যোগ থাকবে। 


স্নান দানের মুহুর্ত- অমাবস্যার দিনে স্নান দানের বিশেষ গুরুত্ব ব্যাখ্যা করা হয়েছে। এই দিনে সকাল ০৫.০৬ টা থেকে ০৬.৫২ টা পর্যন্ত সময়টি স্নানের জন্য শুভ। 


 মার্গশীর্ষ অমাবস্যার তাৎপর্য 


শাস্ত্র অনুসারে ভগবান শ্রী কৃষ্ণ নিজেকে মার্গশীর্ষ মাস বলে বর্ণনা করেছেন। আপনি যদি পিতৃদোষ থেকে পরিত্রাণ পেতে চান, তবে এর জন্য মার্গশীর্ষ অমাবস্যা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হয়। যারা মোক্ষ ও মোক্ষলাভের জন্য তাদের পূর্বপুরুষদের জন্য কিছু করতে চান, তারা অগ্রহায়ন অমাবস্যার দিন গরীব-দুঃখীকে অন্ন, বস্ত্র ও অর্থ দান করেন। 


 মার্গশীর্ষ অমাবস্যার উপকারিতা 


এই মাস থেকেই সত্যযুগ শুরু হয়েছিল বলে শাস্ত্রে বলা হয়েছে। বিশ্বাস করা হয় যে এই মাসে নির্দিষ্ট তিথিতে উপবাস করলে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের আশীর্বাদ পাওয়া যায়। জ্যোতিষশাস্ত্র মতে, মার্গশীর্ষ মাসের অমাবস্যার দিনে উপবাস করে ব্রহ্মা, ইন্দ্র, রুদ্র, অশ্বিনী কুমার, সূর্য, অগ্নি, পাখি, পশু,এবং অসুর সহ অনেক দেবতাকে প্রসন্ন করা যায়। জ্যোতিষ শাস্ত্র অনুসারে এই দৃষ্টি হবে অমাবস্যা। এই দিনে চন্দ্র সংক্রান্ত কিছু প্রতিকার করলে মানুষের সমস্ত আটকে থাকা কাজ পূর্ণ হয়।


বি.দ্র: এখানে দেওয়া তথ্য প্রচলিত বিশ্বাস ও মান্যতার ওপর ভিত্তি করে লেখা। প্রেসকার্ড নিউজ এটি নিশ্চিত করে না।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad