বেশি মাছ খেলে কী হয়? - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Wednesday, 23 November 2022

বেশি মাছ খেলে কী হয়?


আমাদের দেশের অনেক রাজ্যে যেমন- বিহার, বাংলা, আসাম, মাছ প্রচুর খাওয়া হয়।  এটি স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী বলে মনে করা হয়।  সে কারণে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরাও মাছ খাওয়ার পরামর্শ দেন।  ওমেগা 3 ফ্যাটি অ্যাসিড, প্রোটিন, ভিটামিনের মতো অনেক পুষ্টি উপাদান এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে।  মাছ খাওয়া আপনার মস্তিষ্ককে খুব তীক্ষ্ণ করে তুলতে পারে।  তবে আমরা আপনাকে বলি যে কিছু পরিস্থিতিতে মাছ খাওয়া আপনার জন্য ক্ষতিকারকও হতে পারে।  তাই মাছ খাওয়ার আগে এর সাথে সম্পর্কিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় জেনে নেওয়া খুবই জরুরি।  আসুন জেনে নিই মাছ খেলে স্বাস্থ্যের কী কী ক্ষতি হতে পারে। 

 মাছের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

 ডায়েট মন্ত্র ক্লিনিকের ডায়েটিশিয়ান কামিনী কুমারী বলেন, মাছ স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী।  কিন্তু এতে ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে।  আসলে, মাছ পানিতে উপস্থিত খাদ্য ও রাসায়নিক পদার্থ শোষণ করে।  এই সময়ে মাছ পারদ এবং PCB-এর মতো রাসায়নিক পদার্থও শোষণ করে।  যার কারণে ধীরে ধীরে তাদের শরীরে পারদ এবং পিসিবি প্রচুর পরিমাণে জমতে শুরু করে।  এমন পরিস্থিতিতে আপনি যদি খুব বেশি মাছ খান, তাহলে তা আপনার শরীরের অনেক ক্ষতি করতে পারে।  আসুন এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানি-

 স্নায়ুতন্ত্রের ক্ষতি করতে পারে

 ডায়েটিশিয়ানরা বলছেন যে আপনি যদি পারদ এবং পিসিবিযুক্ত মাছ বেশি পরিমাণে খান তবে এটি আপনার মস্তিষ্ক এবং স্নায়ুতন্ত্রের অনেক ক্ষতি করতে পারে।  অতএব, একবারে প্রচুর পরিমাণে মাছ খাওয়া এড়িয়ে চলুন।  সেই সঙ্গে এমন মাছ বেছে নিন, যাতে পারদ ও পিসিবি কম থাকার সম্ভাবনা থাকে।

 গর্ভবতী মহিলা এবং শিশুদের জন্য ক্ষতিকর

 পারদযুক্ত মাছ খাওয়া গর্ভবতী মহিলা এবং শিশুদের জন্য অনেক ক্ষতি করতে পারে।  বেশি পরিমাণে মাছ খাওয়ার ফলে গর্ভপাত হতে পারে।  সেই সঙ্গে কিছু পরিস্থিতিতে শিশুদের মানসিক ও শারীরিক বিকাশও বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

 ক্যান্সারের ঝুঁকি

 শরীরে অত্যধিক পিসিবি এবং পারদ থাকলে ক্যান্সার হতে পারে।  তাই শিশু ও বয়স্কদের পারদযুক্ত মাছ খাওয়া উচিৎ নয়।  এটি তাদের জন্য আরও মারাত্মক হতে পারে।

 ডায়াবেটিসের ঝুঁকি

 এছাড়া কিছু ছোট মাছে ডিডিই নামক বিষাক্ত পদার্থ থাকে যা ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়াতে পারে।  আসলে, আপনি যখন ছোট মাছ খান, তখন এই পদার্থটি ধীরে ধীরে আপনার লিভারে জমতে শুরু করে।  যার কারণে স্থূলতা ও ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়তে পারে।

 বেশি মাছ খাওয়ার অন্যান্য অসুবিধা

 আপনি যদি অতিরিক্ত মাত্রায় পারদযুক্ত মাছ খান তবে তা আপনার শরীরের জন্য মারাত্মক হতে পারে।  এর কারণে আপনি অনেক সমস্যার সম্মুখীন হবেন যেমন-

 উদ্বেগ ব্যাধি

 বিষণ্ণতা

 বিরক্তি

 স্মৃতিশক্তি হ্রাস

 মাছ খাওয়ার ঝুঁকি কিভাবে কমানো যায়?

 মাছ নিরাপদ কি না তা পরীক্ষা করার জন্য আপনি কিছু সহজ পদক্ষেপ অনুসরণ করতে পারেন।  যেমন-

 মাছ নেওয়ার সময় কোথায় মাছ ধরা পড়ল?

 সব সময় এমন প্রজাতির মাছ খান, যাতে পারদ বা অন্যান্য ক্ষতিকারক পদার্থ কম থাকে।

 মাছ ভালো করে ধুয়ে পরিষ্কার করে খেয়ে নিন।

 মাছ ভালো করে রান্না করে খেয়ে নিন।  যাতে রাসায়নিকের প্রভাব কমানো যায়।

 সামুদ্রিক মাছে পারদ বেশি থাকে।  তাই সামুদ্রিক মাছ বেশি পরিমাণে খাবেন না।

 সপ্তাহে দুইবারের বেশি মাছ খাবেন না।

 মাছ স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী হতে পারে।  কিন্তু এতে উপস্থিত রাসায়নিক আপনার শরীরের ক্ষতি করতে পারে।  তাই মাছ কেনার সময় ভালো করে দেখে নিন।  একই সময়ে, অতিরিক্ত পরিমাণে মাছ খাবেন না।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad