এই সহজ উপায়ে আপনার ফুসফুস নিরাপদ রাখুন - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Thursday, 24 November 2022

এই সহজ উপায়ে আপনার ফুসফুস নিরাপদ রাখুন


ফুসফুস মানব দেহের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ।  ফুসফুসকে সুস্থ রাখলে একজন মানুষ দীর্ঘ সময় সুস্থ জীবনযাপন করতে পারে।  কিন্তু ব্যস্ত জীবন এবং সঠিক তথ্যের অভাবে মানুষ প্রায়ই ফুসফুসের স্বাস্থ্যকে উপেক্ষা করে।  পরিবর্তিত আবহাওয়া এবং বাতাসের সাথে জড়িত আর্দ্রতার কারণে ফুসফুস দ্রুত ক্ষতিগ্রস্ত হয়।  তাই তাদের যথাযথ যত্ন নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ।  ফুসফুসকে সুস্থ রাখার জন্য তাদের পর্যাপ্ত অক্সিজেন পাওয়া এবং জীবনযাপনের জন্য বন্ধুত্বপূর্ণ জীবনযাপন করা প্রয়োজন।

 ফ্যাটি এসিড

 কেউ কেউ ফ্যাটি অ্যাসিডের নাম শুনলেই ভয় পেয়ে যান।  কিন্তু ফ্যাটি অ্যাসিড যে আমাদের শরীরের জন্য ক্ষতিকর তা নয়।  বরং ফ্যাটি অ্যাসিড এমনই একটি উপাদান, যা ফুসফুসের সুস্থতায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।  ফ্যাটি অ্যাসিড সঠিক এবং সীমিত পরিমাণে গ্রহণ করা হলে অনেক রোগ প্রতিরোধ করা হয়।  ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিডের জন্য, আপনি দুধ, দই, পনির, সবুজ মটরশুটি, শিমের শুঁটি এবং সবুজ শাকসবজি সহ আপনার খাদ্যতালিকায় শণের বীজ অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন।

 লাইকোপেন ডায়েট খান

 চিকিৎসক ও অনেক বিশেষজ্ঞ বলেছেন, লাইকোপিন যুক্ত খাবার ফুসফুসের জন্য খুবই উপকারী।  এসব খাবারে প্রচুর পরিমাণে ক্যারোটিনয়েড পাওয়া যায়, যা ফুসফুসকে সুস্থ রাখে।  আসলে, ক্যারোটিনয়েড হল এমনই একটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা ফুসফুসকে হাঁপানি এবং ফুসফুসের ক্যান্সারের মতো সমস্ত রোগ থেকে রক্ষা করে।  আমরা আপনাকে বলি যে লাইকোপেন নামক একটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পাওয়া যায় গাজর, পেঁপে, টমেটো, মিষ্টি আলু, তরমুজ এবং সবুজ শাকসবজিতে।

 ঘরের কার্পেট খুব পরিষ্কার রাখুন

আপনার কার্পেটগুলি সপ্তাহে তিনবার ভ্যাকুয়াম করা এবং প্রতি বছর সেগুলি বাষ্প করা ফুসফুসকে সুস্থ রাখার একটি উপায়।  এর কারণ হল ধুলো এবং মাটি খুব দ্রুত তাদের মধ্যে বসতি স্থাপন করে এবং তারা বাতাসের মাধ্যমে আপনার ভিতরে প্রবেশ করতে পারে যা আপনার ফুসফুসকে প্রভাবিত করতে পারে।  যদি আপনার পক্ষে ভ্যাকুয়াম করা সম্ভব না হয় তবে অবশ্যই সপ্তাহে দুবার একটি ভেজা কাপড় দিয়ে পরিষ্কার করুন।

 নিজেকে সক্রিয় রাখুন

আপনি অবশ্যই সচেতন থাকবেন যে ব্যায়াম আপনার হৃদয়কে সুস্থ রাখতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, তবে খুব কম লোকই জানেন যে নিয়মিত ব্যায়াম আপনার ফুসফুসকেও সুস্থ রাখে।  নিয়মিত যোগব্যায়াম ও ব্যায়ামের মাধ্যমেও অসুস্থ ফুসফুস নিরাময় করা যায়। আপনি যদি জিমে না যান তবে আপনি নিয়মিত হাঁটাহাঁটি করতে পারেন, টেনিস খেলতে পারেন বা ঘরের কাজ করে অনুশীলন করতে পারেন।  ব্যায়ামের সময় আপনার যদি কোনো ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যা হয়, তাহলে চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন।


 ডালিম এবং আপেল

 আমাদের শরীরে রক্ত ​​বৃদ্ধি ছাড়াও ফুসফুস পরিষ্কার করতে ডালিম বড় ভূমিকা পালন করে।  অন্যদিকে আপেলে ভিটামিন ই এবং সি উভয়ই রয়েছে।  এই দুটি ফলই ফুসফুসের ক্যানসারের মতো মারাত্মক রোগ থেকে আমাদের রক্ষা করতে বড় ভূমিকা রাখে।  আপনি যদি এমন কোনো কাজে থাকেন যেখানে ভ্রমণ বেশি হয় বা আপনি সারাদিন খোলা জায়গায় থাকেন, তাহলে আপনার ফুসফুসের স্বাস্থ্যের জন্য আপনার প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় একটি ডালিম এবং একটি আপেল অন্তর্ভুক্ত করা উচিৎ।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad