মুখ্যমন্ত্রীকে ইডির‌ তলব! - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Wednesday, 2 November 2022

মুখ্যমন্ত্রীকে ইডির‌ তলব!


অবৈধ খনন ও মানি লন্ডারিং মামলায় মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনকে তলব করেছে ইডি। নির্ভরযোগ্য সূত্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে, ৩ নভেম্বর সকাল ১১.৩০-এ মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকেছে ইডি। উল্লেখ্য, সাহেবগঞ্জে মুখ্যমন্ত্রীর বিধায়ক প্রতিনিধি পঙ্কজ মিশ্রের বাড়িতে অভিযানের সময় ইডি একটি খাম খুঁজে পেয়েছিল। এতে মুখ্যমন্ত্রীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে যুক্ত চেক বই রয়েছে বলে জানা গেছে। ২টি চেকবুকে মুখ্যমন্ত্রীর স্বাক্ষর পাওয়ার কথাও হচ্ছে। এছাড়াও, হারমুতে প্রেম প্রকাশের বাড়িতে অভিযানের সময়, ইডি তার বাড়ির আলমারি থেকে দুটি একে-৪৭ রাইফেল এবং ৬০ টি গুলি খুঁজে পেয়েছিল। বলা হচ্ছে, এই অস্ত্রধারী দুই কনস্টেবল মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনের নিরাপত্তায় নিয়োজিত ছিলেন।


 

সম্প্রতি এটি প্রকাশিত হয়েছিল যে, পঙ্কজ মিশ্র বিচার বিভাগীয় হেফাজতে রিমস-এ চিকিত্সার সময় আধিকারিকদের সাথে ক্রমাগত যোগাযোগে ছিলেন। সূত্রের খবর, তদন্তে ইডি জোরালো প্রমাণ পেয়েছে যে, পঙ্কজ মিশ্র মুখ্যমন্ত্রীর নাম নিয়ে আধিকারিকদের হয়রানি করতেন। 


উল্লেখ্য, ১৯ জুলাই, ইডি সাহেবগঞ্জ এবং অন্যান্য জেলায় অবৈধ খনন এবং অর্থ পাচারের অভিযোগে মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনের বিধায়ক প্রতিনিধি পঙ্কজ মিশ্রকে গ্রেফতার করেছিল। পঙ্কজ মিশ্রের বিরুদ্ধে অবৈধ খনির মাধ্যমে ৪২ কোটি টাকা পাচারের অভিযোগ রয়েছে। পঙ্কজ মিশ্রের গ্রেফতারের পরে একটি আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে, ইডি জানিয়েছিল যে, রাজ্যে ১০০০ কোটি টাকারও বেশি অবৈধ খনন হয়েছে।


মুখ্যমন্ত্রীকে ইডির সমন- এই খবর সামনে আসতেই প্রধান বিরোধী দল বিজেপির নেতাদের প্রতিক্রিয়া আসতে শুরু করেছে। গোড্ডা থেকে লোকসভা সাংসদ নিশিকান্ত দুবে সংবাদপত্রের কাটিং শেয়ার করে লিখেছেন, এখন আর কী বাকি আছে? বিজেপি বিধানসভা দলের নেতা বাবুলাল মারান্ডিও ট্যুইট করেছেন, যাতে লেখা আছে, ভগবান শ্রীকৃষ্ণ অহংকারী শিশুপালের একশত ভুল ক্ষমা করেছিলেন। এটাই বিধির বিধান, পাপের পাত্র যখন সম্পূর্ণ পূর্ণ হয়ে যায়, তখন উপরওয়ালার চক্র চলে। এটিকে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।


প্রসঙ্গত, চলতি বছর ৬ মে, ইডি প্রথমবারের মতো ঝাড়খণ্ডের বন্ধ খনি ও শিল্প সচিব পূজা সিংগাল এবং অন্যান্যদের অন্তত ২৫টি জায়গায় অভিযান চালিয়েছিল। তারপরে, সাসপেন্ডড আইএএস পূজা সিংগালের স্বামী অভিষেক ঝা, সিএ সুমন কুমারের বাড়ি এবং অফিস থেকে ১৯ কোটি টাকার বেশি নগদ উদ্ধার করা হয়েছিল। তদন্তে অগ্রসর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অবৈধ খনির ঘটনাও সামনে আসে।  


৮ জুলাই, ইডি বিধায়ক প্রতিনিধি পঙ্কজ মিশ্র সহ অন্যদের সাহেবগঞ্জ, মিরচাচৌকি, উধওয়া, বারহারওয়া, বারহাইত এবং রাজমহলের ১১টি স্থানে অভিযান চালায়। অভিযানে পাঁচ কোটি টাকার বেশি নগদ উদ্ধার করা হয়। ৩৭ টি বিভিন্ন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ১১ কোটি ৩৭ লক্ষ টাকা জমা রয়েছে বলেও জানা যায়। ইডি যখন এই মামলায় চার্জশিট দাখিল করে, তখন মুখ্যমন্ত্রীর স্বাক্ষরিত চেক বই ছিল বলে জানা গেছে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad