এই পানীয়গুলো খারাপ কোলেস্টেরলের শত্রু - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Thursday, 5 January 2023

এই পানীয়গুলো খারাপ কোলেস্টেরলের শত্রু




 উচ্চ কোলেস্টেরল মারাত্মক হতে পারে। আপনি যদি রোগ এড়াতে চান, তাহলে কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ করা খুবই জরুরি। আমরা ঘরে থাকা জিনিসগুলি থেকে পানীয় তৈরি করে এটি কমাতে পারি। 


কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে পানীয়: খারাপ কোলেস্টেরল হার্ট অ্যাটাকের মতো রোগকে আমন্ত্রণ জানায়। হৃদরোগ এড়াতে হলে কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। আমাদের জীবনযাত্রা এবং ভুল খাদ্যাভ্যাস কোলেস্টেরল বৃদ্ধির জন্য অনেকাংশে দায়ী। আমরা আমাদের খাদ্যতালিকায় কিছু স্বাস্থ্যকর পানীয় অন্তর্ভুক্ত করে কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ করতে পারি এবং হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি এড়াতে পারি। 


খারাপ কোলেস্টেরল

কোলেস্টেরল শিরায় জমা হয়। এই ফলক রক্ত ​​সঞ্চালনকে প্রভাবিত করে, যার কারণে রক্ত ​​সঠিকভাবে হৃদয়ে পৌঁছায় না। অনেক সময় শিরায় ব্লকেজের কারণে হার্ট অ্যাটাক হয়। 


টমেটো রস

টমেটোর রস কোলেস্টেরল কমাতে কার্যকরী। এতে উপস্থিত লাইকোপিন খারাপ কোলেস্টেরল বাড়াতে বাধা দেয়। টমেটোতে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট কোষের ক্ষতি প্রতিরোধ করে। টমেটোতে উপস্থিত ফাইবার, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, ভিটামিন এবং মিনারেল প্লাক জমতে বাধা দেয়। 


আদা ও রসুনের রস

আদা ও রসুনে উপস্থিত বৈশিষ্ট্য কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে। আদা ও রসুন পিষে রস তৈরি করুন এবং এতে লেবুর রস, মধু এবং আপেল ভিনেগার যোগ করুন। এই পানীয়টি কোলেস্টেরলের মাত্রা দ্রুত কমায়। আপনি এটি প্রতিদিন এক চামচ পান করতে পারেন। 


গ্রিন টি পান করুন

গ্রিন টি স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। এটি পান করলে কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে থাকে। গ্রিন টি হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়। এতে উপস্থিত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে। 


মেথি জল 

মেথিতে উপস্থিত বৈশিষ্ট্য হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়। এগুলো ফাইবার এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্টে ভরপুর। মেথি দানা রাতে ভিজিয়ে রেখে সকালে এর জল পান করলে কোলেস্টেরল কমে যায়। সকালে এর বীজ সিদ্ধ করে এর কুসুম গরম জল পান করাও স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। 


বি.দ্র: এখানে দেওয়া তথ্য সাধারণ জ্ঞানের ওপর ভিত্তি করে লেখা- নতুন যে কোনও কিছু ট্রাই করার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ অবশ্যই নিন।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad