তৃণমূল বিধায়কের ঠিকানায় আয়কর বিভাগের অভিযান, বাজেয়াপ্ত ১৫ কোটি টাকা - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Friday, 13 January 2023

তৃণমূল বিধায়কের ঠিকানায় আয়কর বিভাগের অভিযান, বাজেয়াপ্ত ১৫ কোটি টাকা



বিপাকে তৃণমূল বিধায়ক জাকির হুসেন।  দুই দিন ধরে আয়কর বিভাগের অভিযানে প্রায় 15 কোটি টাকা নগদ বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।  তিনি এই নগদ অর্থের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট উত্তর না দিলে নগদ টাকা বাজেয়াপ্ত করেছে বিভাগ।  জাকির, দুই বারের বিধায়ক, মুর্শিদাবাদ জেলার জাহাঙ্গীরপুর বিধানসভা আসনের প্রতিনিধিত্ব করেন।  আয়কর দফতরের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, বিধায়কের বিড়ি ফ্যাক্টরি, গুদাম ও রাইস মিলে এই অভিযান চালানো হয়।



 বুধবার তাদের মুর্শিদাবাদ, কলকাতা এবং নয়াদিল্লীর স্থাপনায় একযোগে অভিযান চালানো হয়।  আধিকারিকরা জানিয়েছেন, বিধায়কের কারখানা এবং স্থাপনাগুলি ছাড়াও, তার ঘনিষ্ঠ তৃণমূল কাউন্সিলর আমির উদ্দিন বাবির বাসভবন, বাড়ি এবং হোটেলেও অভিযান চালানো হয়েছিল।  তবে এখানে সিল করার কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।  যদি বিভাগীয় আধিকারিকদের বিশ্বাস করা হয়, বিধায়কের একটি জায়গা থেকে 9 কোটি টাকার নগদ উদ্ধার করা হয়েছে।  বিধায়কের মোট 28টি স্থানে অভিযান চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন।  এর মধ্যে রয়েছে তিনটি বিড়ি কারখানা ও অন্যান্য স্থাপনা।


 

 বিপুল পরিমাণ নগদ প্রাপ্তির বিষয়টি এবং তার কোনও হিসাব সামনে না আসার পরে তদন্তে ইডি-র জড়িত থাকার সম্ভাবনাও বেড়েছে।  ইডি আধিকারিকরা জানিয়েছেন, পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।  প্রয়োজনে বিষয়টি ইডিও তদন্ত করবে।



অন্যদিকে এই অভিযানের পর বিবৃতি দিয়েছেন বিধায়ক জাকির হুসেন।  এই অভিযানে আয়কর দফতর কিছুই পায়নি বলে জানিয়েছেন।  তাদের হয়রানি করার জন্যই এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।  তার কারণ তিনি তৃণমূলে রয়েছেন।  তিনি বলেন, "আমি অপরাধী নই।  বরং ব্যবসায়ী হয়ে আমার নির্বাচনী এলাকায় রাজনীতি করি।"  তিনি জানান, গত 23 বছর ধরে তিনি নিজেই আয়কর দিয়ে আসছেন।  অধিদপ্তরের বাজেয়াপ্ত করা অর্থ অবৈধ নয়, তবে কর্মচারীদের বেতন পরিশোধের জন্য রাখা হয়েছিল।  তবে রাজ্যের ক্যাবিনেট মন্ত্রী তথা কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হননি।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad