শীতের মৌসুমে ভুল করেও হাঁপানি রোগীদের এই কাজটি করা উচিৎ নয় বর্তমান সময়ে প্রতিটি মানুষই হাঁপানির সমস্যায় ভুগছে। সেই সঙ্গে শীতের মৌসুমে এই সমস্যা বাড়ে।কারণ তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে কম হলে ঠান্ডা লাগার সমস্যা হয়। এমন পরিস্থিতিতে যদি আপনার বা আপনার পরিবারের কারো অ্যাজমা থাকে, তাহলে আপনার নিজের বিশেষ যত্ন নেওয়া উচিৎ । শীতের মৌসুমে ভুল করেও হাঁপানি রোগীদের এই কাজটি করা উচিৎ নয়- বাইরে ব্যায়াম করা হাঁপানি রোগীদের শীত মৌসুমে নিজেদের বিশেষ যত্ন নিতে হবে, এ জন্য হাঁপানি রোগীদের ঠান্ডায় ব্যায়ামের জন্য ঘরের বাইরে যাওয়া উচিৎ নয়। এতে হাঁপানির সমস্যা বাড়তে পারে।এর পাশাপাশি দীর্ঘক্ষণ ব্যায়াম করবেন না, এটাও মাথায় রাখুন।তাই হাঁপানির রোগীদের শীতে বাইরে গিয়ে ব্যায়াম করা উচিৎ নয়। পরিষ্কার ঘর- বেশিরভাগ হাঁপানি রোগী শীতের মৌসুমে ঘরের মধ্যে সময় কাটান। এমন পরিস্থিতিতে সময়ে সময়ে ঘরকে ধুলামুক্ত করা প্রয়োজন। কারণ ঘর পরিষ্কার না থাকলে হাঁপানির লক্ষণ তীব্র আকার ধারণ করতে পারে। মুখে শ্বাস নেওয়া এড়িয়ে চলুন- অনেকের মুখ দিয়ে শ্বাস নেওয়ার অভ্যাস আছে। কিন্তু যদি আপনার হাঁপানি থাকে, তাহলে ঠান্ডা তাপমাত্রায় আপনার নাক দিয়ে শ্বাস নেওয়া প্রয়োজন। কারণ ঠান্ডা আবহাওয়ায় নাক দিয়ে শ্বাস না নিলে হাঁপানির আক্রমণ হতে পারে। পোষা প্রাণীর কাছাকাছি যাওয়া এড়িয়ে চলুন আপনার বাড়িতে যদি পোষা প্রাণী থাকে তবে এটি হাঁপানিও হতে পারে। সেই সঙ্গে শীতে এই সমস্যা আরও বেড়ে যায়। এমন পরিস্থিতিতে যতটা সম্ভব আপনার পোষা প্রাণী থেকে দূরে থাকুন। কারণ এটি আপনাকে সমস্যার কারণ হতে পারে। - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Friday, 13 January 2023

শীতের মৌসুমে ভুল করেও হাঁপানি রোগীদের এই কাজটি করা উচিৎ নয় বর্তমান সময়ে প্রতিটি মানুষই হাঁপানির সমস্যায় ভুগছে। সেই সঙ্গে শীতের মৌসুমে এই সমস্যা বাড়ে।কারণ তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে কম হলে ঠান্ডা লাগার সমস্যা হয়। এমন পরিস্থিতিতে যদি আপনার বা আপনার পরিবারের কারো অ্যাজমা থাকে, তাহলে আপনার নিজের বিশেষ যত্ন নেওয়া উচিৎ । শীতের মৌসুমে ভুল করেও হাঁপানি রোগীদের এই কাজটি করা উচিৎ নয়- বাইরে ব্যায়াম করা হাঁপানি রোগীদের শীত মৌসুমে নিজেদের বিশেষ যত্ন নিতে হবে, এ জন্য হাঁপানি রোগীদের ঠান্ডায় ব্যায়ামের জন্য ঘরের বাইরে যাওয়া উচিৎ নয়। এতে হাঁপানির সমস্যা বাড়তে পারে।এর পাশাপাশি দীর্ঘক্ষণ ব্যায়াম করবেন না, এটাও মাথায় রাখুন।তাই হাঁপানির রোগীদের শীতে বাইরে গিয়ে ব্যায়াম করা উচিৎ নয়। পরিষ্কার ঘর- বেশিরভাগ হাঁপানি রোগী শীতের মৌসুমে ঘরের মধ্যে সময় কাটান। এমন পরিস্থিতিতে সময়ে সময়ে ঘরকে ধুলামুক্ত করা প্রয়োজন। কারণ ঘর পরিষ্কার না থাকলে হাঁপানির লক্ষণ তীব্র আকার ধারণ করতে পারে। মুখে শ্বাস নেওয়া এড়িয়ে চলুন- অনেকের মুখ দিয়ে শ্বাস নেওয়ার অভ্যাস আছে। কিন্তু যদি আপনার হাঁপানি থাকে, তাহলে ঠান্ডা তাপমাত্রায় আপনার নাক দিয়ে শ্বাস নেওয়া প্রয়োজন। কারণ ঠান্ডা আবহাওয়ায় নাক দিয়ে শ্বাস না নিলে হাঁপানির আক্রমণ হতে পারে। পোষা প্রাণীর কাছাকাছি যাওয়া এড়িয়ে চলুন আপনার বাড়িতে যদি পোষা প্রাণী থাকে তবে এটি হাঁপানিও হতে পারে। সেই সঙ্গে শীতে এই সমস্যা আরও বেড়ে যায়। এমন পরিস্থিতিতে যতটা সম্ভব আপনার পোষা প্রাণী থেকে দূরে থাকুন। কারণ এটি আপনাকে সমস্যার কারণ হতে পারে।



বর্তমান সময়ে প্রতিটি মানুষই হাঁপানির সমস্যায় ভুগছে।  সেই সঙ্গে শীতের মৌসুমে এই সমস্যা বাড়ে।কারণ তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে কম হলে ঠান্ডা লাগার সমস্যা হয়।  এমন পরিস্থিতিতে যদি আপনার বা আপনার পরিবারের কারো অ্যাজমা থাকে, তাহলে আপনার নিজের বিশেষ যত্ন নেওয়া উচিৎ ।


 শীতের মৌসুমে ভুল করেও হাঁপানি রোগীদের এই কাজটি করা উচিৎ নয়-


 বাইরে ব্যায়াম করা

 হাঁপানি রোগীদের শীত মৌসুমে নিজেদের বিশেষ যত্ন নিতে হবে, এ জন্য হাঁপানি রোগীদের ঠান্ডায় ব্যায়ামের জন্য ঘরের বাইরে যাওয়া উচিৎ নয়।  এতে হাঁপানির সমস্যা বাড়তে পারে।এর পাশাপাশি দীর্ঘক্ষণ ব্যায়াম করবেন না, এটাও মাথায় রাখুন।তাই হাঁপানির রোগীদের শীতে বাইরে গিয়ে ব্যায়াম করা উচিৎ নয়।


 পরিষ্কার ঘর-

 বেশিরভাগ হাঁপানি রোগী শীতের মৌসুমে ঘরের মধ্যে সময় কাটান।  এমন পরিস্থিতিতে সময়ে সময়ে ঘরকে ধুলামুক্ত করা প্রয়োজন।  কারণ ঘর পরিষ্কার না থাকলে হাঁপানির লক্ষণ তীব্র আকার ধারণ করতে পারে।


মুখে শ্বাস নেওয়া এড়িয়ে চলুন-

 অনেকের মুখ দিয়ে শ্বাস নেওয়ার অভ্যাস আছে।  কিন্তু যদি আপনার হাঁপানি থাকে, তাহলে ঠান্ডা তাপমাত্রায় আপনার নাক দিয়ে শ্বাস নেওয়া প্রয়োজন।  কারণ ঠান্ডা আবহাওয়ায় নাক দিয়ে শ্বাস না নিলে হাঁপানির আক্রমণ হতে 

বি.দ্র: এখানে দেওয়া তথ্য সাধারণ জ্ঞানের ওপর ভিত্তি করে লেখা- নতুন যে কোনও কিছু ট্রাই করার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ অবশ্যই নিন।




 পোষা প্রাণীর কাছাকাছি যাওয়া এড়িয়ে চলুন

 আপনার বাড়িতে যদি পোষা প্রাণী থাকে তবে এটি হাঁপানিও হতে পারে।  সেই সঙ্গে শীতে এই সমস্যা আরও বেড়ে যায়।  এমন পরিস্থিতিতে যতটা সম্ভব আপনার পোষা প্রাণী থেকে দূরে থাকুন।  কারণ এটি আপনাকে সমস্যার কারণ হতে পারে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad