ইসকন মন্দির পরিদর্শন করে পূজো করলেন জেপি নাড্ডা - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Thursday, 19 January 2023

ইসকন মন্দির পরিদর্শন করে পূজো করলেন জেপি নাড্ডা



জেপি নাড্ডা বিজেপির জাতীয় সভাপতি হিসাবে তাঁর মেয়াদ বাড়ানোর পরে তাঁর প্রথম বাংলা সফরে রয়েছেন।  বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে কলকাতা বিমানবন্দরে পৌঁছান বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি।  শুভেন্দু অধিকারী, সুকান্ত মজুমদারের মতো রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতারা জেপি নাড্ডাকে স্বাগত জানিয়েছেন।  বৃহস্পতিবার সকালে জেপি নাড্ডা নদীয়া জেলার মায়াপুরে ইসকনের সদর দফতরে পৌঁছান।  সেখানে জেপি নাড্ডা ইসকনের মন্দির পরিদর্শন করেন।  সন্ন্যাসীদের সাথে মতবিনিময় করেন এবং মন্দিরে প্রার্থনা করেন।


 বিজেপি সূত্রে খবর, আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনের কৌশল ঠিক করতেই তাঁর এই বাংলা সফর।  বুধবার রাতে রাজারহাটের একটি পাঁচতারা হোটেলে ছিলেন বিজেপি সভাপতি।  বৃহস্পতিবার জেপি নাড্ডার অনেক কর্মসূচি রয়েছে।  দলের জনসভায় যোগ দেওয়ার পাশাপাশি জেপি নাড্ডা বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গেও দেখা করবেন।



মায়াপুরে পৌঁছে জেপি নাড্ডা মায়াপুরের ইসকন মন্দিরে আরতি করেন। বাংলায় একের পর এক আবাস প্রকল্পে কারচুপির অভিযোগ উঠছে, সেই সময় বিজেপি সভাপতি আজকের দলের জনসভা থেকে তৃণমূল ও রাজ্য সরকারকে আক্রমণ করতে পারেন।  বৃহস্পতিবার হেলিকপ্টারে করে মায়াপুর ইসকন মন্দিরে পৌঁছে পূজা করেন জেপি নাড্ডা।  ইসকন মন্দিরে প্রসাদ গ্রহণের পর বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি সড়কপথে বেথুয়াধড়ি পৌঁছাবেন।  সেখানে তাকে জনসভায় ভাষণ দিতে হবে।  নদিয়ায় জনসভায় অংশ নেবেন বিজেপির রাজ্য নেতৃত্বও।  সূত্রের খবর, জনসভার পর স্থানীয় বেসরকারি হলে জেলা ও রাজ্য নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করবেন জেপি নাড্ডা।  যদিও তা এখনও ঘোষণা করা হয়নি।


 

 কয়েক মাসের মধ্যে রাজ্যে তিন স্তরের পঞ্চায়েত নির্বাচন হতে চলেছে।  বৈঠকে পঞ্চায়েত নির্বাচনের কৌশল নিয়ে দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে আলোচনা হতে পারে বলে সূত্রের খবর।  দলের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করে বৃহস্পতিবার রাতে দিল্লী ফিরবেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি। জেপি নাড্ডার বাংলা সফরকে রাজনৈতিক মহলে খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।  সম্প্রতি বিজেপির জাতীয় কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকের পর সভাপতি হিসেবে তাঁর মেয়াদ আরও এক বছরের জন্য বাড়ানো হয়েছে।  ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকের পর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এ কথা ঘোষণা করেন।  পরের বছর লোকসভা নির্বাচন। বিজেপি নেতৃত্বের জন্য এখন বড় চ্যালেঞ্জ হল 2021 সালের বিধানসভা নির্বাচনে বাংলায় অপ্রত্যাশিত পরাজয় যাতে পরবর্তী লোকসভা নির্বাচনে প্রভাব না ফেলে তা নিশ্চিত করা।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad