আইএসএফ সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ, নিক্ষেপ কাঁদানে গ্যাসের শেল, আহত একাধিক - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Saturday, 21 January 2023

আইএসএফ সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ, নিক্ষেপ কাঁদানে গ্যাসের শেল, আহত একাধিক



 ধর্মতলায় আইএসএস সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ।  আইএসএস সমর্থকদের বিক্ষোভের জেরে মধ্য কলকাতায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।  ভাঙরে তৃণমূল কংগ্রেসের কথিত হামলার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছিলেন আইএসএফ কর্মীরা।  দলীয় কর্মীদের বিক্ষোভের পর পুলিশের বিরুদ্ধে লাঠিচার্জের অভিযোগ ওঠে।  অন্যদিকে, আইএসএফ বিধায়ক নওশাদ সিদ্দিকীর দলের সমর্থকদের বিরুদ্ধে পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগ উঠেছে।  উত্তেজিত জনতাকে থামাতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে।  দুই পক্ষেরই আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।



 আইএসএফ পুলিশকে বাঁশের লাঠি দিয়ে মারধর করে বলে অভিযোগ।  পরে উগ্র সমর্থকদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ প্রথমে লাঠিচার্জ ও পরে কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে।  পুলিশ ও আইএসএফ সমর্থকদের আহত হওয়ার খবর রয়েছে।



 প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ভাঙরে আইএসএফ-এর সমর্থকরা তাদের দলের কর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করছিল।  পুরো ধর্মতলা চত্বরটি কার্যত আইএসএফ সমর্থকদের দখলে ছিল।  তিনি দাবী করেন, ভাঙরের অশান্তির জন্য প্রাক্তন বিধায়ক আরাবুল ইসলাম দায়ী।  তার দলের লোকজন দিনভর অস্থিরতা সৃষ্টি করেছে।  এ কারণে আরাবুল ইসলামকে গ্রেপ্তার না করা পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চলবে।  আইএসএফ-এর সভাপতি নওশাদ সিদ্দিকী জানিয়েছেন, যতক্ষণ না প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ককে গ্রেফতার করা হচ্ছে আন্দোলন চলবে।



আইএসএফ সমর্থকদের বিক্ষোভের জন্য ধর্মতলায় প্রচুর পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছিল।  আইএসএফ সমর্থকদের বিক্ষোভের পর পুলিশ আইএসএফ সমর্থকদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে।  অন্যদিকে, আইএসএফ জওয়ানরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে।  জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশও ব্যাপক লাঠিচার্জ শুরু করে।  আইএসএফ কর্মীরা পুলিশের কিয়স্কে হামলা চালায় বলে অভিযোগ।  ব্যাপক তোলপাড় ও ভাংচুর হয়।  কোথাও কোথাও পুলিশের গাড়িও ভাঙচুর করা হয়েছে।  রেলিং ভেঙে পড়ে।  ইতিমধ্যে আইএসএফ বিধায়ক নওশাদ সিদ্দিকী সহ বেশ কয়েকজন সমর্থককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  বিক্ষোভস্থল থেকে তাকে লালবাজার পুলিশ সদর দফতরে নিয়ে আসা হয়েছে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad