নারী সুরক্ষা নিয়ে রাজ্যকে খোঁচা দিলীপের, মুখ খুললেন এনসিসি ফান্ড বিতর্কেও - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Thursday, 27 October 2022

নারী সুরক্ষা নিয়ে রাজ্যকে খোঁচা দিলীপের, মুখ খুললেন এনসিসি ফান্ড বিতর্কেও


এনসিসি করলে কেউ মা মাটি মানুষের ঝান্ডা ধরবে না, তাই হয়তো এই পদক্ষেপ', এনসিসি ফান্ড বিতর্কে রাজ্যকে কটাক্ষ বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষের। এর পাশাপাশি ভাইফোঁটার দিন নারী সুরক্ষা নিয়েও রাজ্যকে খোঁচা দেন দিলীপ ঘোষ। 


বৃহস্পতিবার প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, সরকার অনুভব করেছে যে, 'আমাদের যুবকদের দেশপ্রেম ও শৃঙ্খলায় প্রশিক্ষণ দেওয়া উচিৎ। তাই তারা কোটি কোটি টাকা খরচ করে স্কুল জীবন থেকে ডিসিপ্লিন আনতে চেষ্টা হয়। আর এটা একটা বড় অভিমান হিসেবে চলছে। সেনাবাহিনীর লোকজন এসে ট্রেনিং দেয়, সেজন্য সারা দেশে এই কাজ চলছে। অনেক ছেলে-মেয়ে উপকৃত হয়।'


দিলীপ ঘোষ রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করে বলেন, “পশ্চিমবঙ্গ সরকার যদি মনে করে যে, প্রত্যেকেই তাদের দলের নেতাদের মতো ইনডিসিপ্লিন, চরিত্রহীন এবং চোর হোক, ফলে এনসিসি করলে কেউ মা মাটি মানুষের ঝান্ডা ধরবে না, জয় বাংলা বলবে না, সেজন্যই হয়তো এনসিসি বন্ধ করে দিচ্ছে।'


এর পাশাপাশি রাজ্যে নারী সুরক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে খোঁচা দিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, 'যারা ফোঁটা নিচ্ছেন তারা বোনদের সম্মান রক্ষার দায়িত্ব নিন, রাজ্য সরকারের উপর দায়িত্ব দিলে আরও একটা বগটুই হবে।'


প্রসঙ্গত, বুধবার থেকে একটি সমস্যা ভীষণ মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে। রাজ্য সরকার এনসিসিকে অনুদান দেওয়া বন্ধ করে দেওয়ার কথা প্রকাশ্যে আসতেই বিরোধীরা সরব হয়েছে। ইতিমধ্যেই কম্যান্ডিং অফিসার রাজ্য সরকারকে ৬ বার চিঠি দিয়েছেন। কিন্তু সূত্রের খবর, রাজ্য সরকার দাবী করেছে যে, কোষাগার খালি, যার কারণে টাকা দেওয়া হচ্ছে না।


মূলত, কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এনসিসিকে অনুদান দেওয়া হয়। পাশাপাশি রাজ্য থেকেও কিছু শতাংশ অনুদান দেওয়া হয়। এই অনুদানই বন্ধ। যেখানে এনসিসিকে প্রতি বছর তহবিলে পাঁচ কোটি টাকা অনুদান দিতে হয়, গত মার্চ থেকে এপ্রিল পর্যন্ত রাজ্য দিয়েছে মাত্র ৮০ লক্ষ টাকা। ফলে এনসিসি ক্যাডাররা চরম বিপাকে পড়েছে। 


এনসিসি, ক্যাম্পিংও করতে পারছে না। এনসিসির কমান্ডিং অফিসার, মুখ্যসচিব এবং অর্থ সচিবকে একটি চিঠি লিখেছেন এবং ডিজির কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন। এ প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বলেন, “রাজ্য সরকারের ভাঁড়ার সম্পূর্ণ খালি। বিভিন্ন প্রকল্পের জন্য টাকা দিতে পারছে না। এনসিসি এমন একটি কোর্স, যা যুবকদের মধ্যে দেশপ্রেম জাগ্রত করে, সেটিও বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। আমার মনে হয় এর মধ্যেও দূরভিসন্ধি কিছু আছে। রাজ্য সরকার চায় না এনসিসি ক্যাম্প চালু থাকুক। পিএফআই ক্যাম্পগুলো চালু থাকুক, এটাই হয়তো রাজ্য সরকার চায়।'


এই বিষয়ে যদিও তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় দাবী করেছেন, "আমি জানি না কেন এটি আটকে গেল। যা জানি না তা নিয়ে কথা বলা ঠিক নয়। কিন্তু নীতিগতভাবে রাজ্য সরকার এনসিসি বন্ধ করতে চায় না।"

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad