ঘরের আলমারিতে রাখা এই ৪টি জিনিস বদলে দেয় মানুষের ভাগ্য, দ্রুত বাড়ে টাকা - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Wednesday, 16 November 2022

ঘরের আলমারিতে রাখা এই ৪টি জিনিস বদলে দেয় মানুষের ভাগ্য, দ্রুত বাড়ে টাকা

 



 বাস্তুশাস্ত্রে অর্থ পাওয়ার এবং ঘরের সমস্যা দূর করার অনেকগুলি ব্যবস্থার কথা বলা হয়েছে। বাস্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আপনার ইচ্ছা পূরণের জন্য এই জিনিসগুলি আলমারিতে রাখতে পারেন। 


আলমিরার জন্য বাস্তু টিপস: বাস্তুশাস্ত্রে এরকম অনেক বিষয়ের উপর জোর দেওয়া হয়েছে। বাড়ির প্রতিটি কোণ গুরুত্বপূর্ণ। বাস্তুশাস্ত্রে, বাড়ির প্রতিটি কোণ এবং সেখানে রাখা সমস্ত কিছুর একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। বাড়িতে আমরা অনেক সময় জায়গা অনুযায়ী জিনিসপত্র রাখি। কিন্তু বাস্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গৃহস্থালির জিনিসপত্র যদি সঠিক পথে এবং সঠিক জায়গায় রাখা হয়, তাহলে তা ইতিবাচক ফল দেয়। 


ঘরে রাখা আলমারি নিয়ে বাস্তুতে অনেক নিয়ম দেওয়া হয়েছে। এই নিয়মগুলি মাথায় রেখে যদি আলমারিতে জিনিসগুলি রাখা হয় তবে আলমারি আপনার প্রতিটি ইচ্ছা পূরণ করতে পারে। এর জন্য বাস্তুশাস্ত্রে কিছু বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে। বাস্তু বিশেষজ্ঞরা বলেন, এই শুভ জিনিসগুলো আলমারিতে রাখলে ঘরে ধন-সম্পদে সুখ আসে। 


এই জিনিসগুলি আলমারিতে রাখুন


- বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে, আলমারিতে অবিচ্ছিন্ন খাবারের থালা রাখুন। এই সময় এই ভোজপত্রে লাল চন্দন ও ময়ূরের পালক দিয়ে শ্রী লিখে ভল্টে রাখুন। এই প্রতিকার করার ফলে, নিরাপদে রাখা টাকা ধীরে ধীরে বাড়তে শুরু করে। 


সেই সঙ্গে ঘরের আলমারিতে হলুদের টুকরোর সমাধানও বেশ উপকারী। এই প্রতিকার করার জন্য, একটি নীল রঙের কাপড়ে হলুদের একটি টুকরো বেঁধে রাখুন। এর পাশাপাশি কিছু কড়ি, রৌপ্য বা তামার মুদ্রা আশেপাশে রাখলে বিশেষ উপকার পাওয়া যায়। জ্যোতিষশাস্ত্র অনুসারে, হলুদ চাল লকারে রাখা যেতে পারে, এটি ঘরে ধন, সমৃদ্ধি এবং সুখ নিয়ে আসে। 


এছাড়া পার্সে ধূপকাঠি, চন্দনের কাঠি বা ইক্ষা শিশি রাখা যেতে পারে। এতে করে পার্সে সুগন্ধ থাকবে। এর পাশাপাশি রাখতে পারেন পিতল বা তামার মুদ্রা, হলুদ,কড়ি এবং দক্ষিণাবর্তি শঙ্খ। এটি রাখলে ব্যক্তি দ্বিগুণ সুবিধা পাবেন। 

- বাড়ির আলমারিতেও রাখতে পারেন শ্রীফল বা পুজোর সুপারি। বলুন যে জ্যোতিষশাস্ত্রে, ছোট সুপারি গণেশ বা গৌরীর রূপ হিসাবে বিবেচিত হয়েছে। এমন অবস্থায় আলমারিতে রাখলে মা লক্ষ্মীর আশীর্বাদ পেতে পারেন। 


বি.দ্র: এখানে দেওয়া তথ্য প্রচলিত বিশ্বাস ও মান্যতার ওপর ভিত্তি করে লেখা। প্রেসকার্ড নিউজ এটি নিশ্চিত করে না।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad