'মহিলারা কিছু না পরলেও সুন্দর দেখায়!' ভরা সভায় মন্তব্য বাবা রামদেবের, ট্রোলের বন্যা সোশ্যাল মিডিয়ায় - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Friday, 25 November 2022

'মহিলারা কিছু না পরলেও সুন্দর দেখায়!' ভরা সভায় মন্তব্য বাবা রামদেবের, ট্রোলের বন্যা সোশ্যাল মিডিয়ায়


মহিলাদের পোশাক নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের অভিযোগ উঠল যোগগুরু বাবা রামদেবের বিরুদ্ধে। মহারাষ্ট্রের থানে জেলায় একটি অনুষ্ঠানে বাবা রামদেব বলেন যে, মহিলারা শাড়ি পরলেও সুন্দর দেখায়। সালোয়ার কামিজ পরলেও তাদের দেখতে ভালো লাগে। আমার দৃষ্টিতে তো তারা কিছু না পরলেও সুন্দর দেখায়।' আশ্চর্যের বিষয় হল, তিনি ডেপুটি সিএম দেবেন্দ্র ফড়নবীসের স্ত্রী অমৃতা ফড়নবীস এবং মুখ্যমন্ত্রী একনাথ শিন্ডের ছেলে সাংসদ শ্রীকান্ত শিন্ডের উপস্থিতিতে এই বিবৃতি দিয়েছেন।


সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, রামদেব (৫৬) থানেতে পতঞ্জলি যোগ পীঠ এবং মুম্বাই মহিলা পতঞ্জলি যোগ সমিতি আয়োজিত যোগ বিজ্ঞান শিবির এবং মহিলা সম্মেলনে বক্তৃতা করছিলেন। সেখানে মহিলারা যোগব্যায়ামের জন্য পোশাক নিয়ে আসেন এবং তারপর মহিলাদের জন্য একটি সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এই অনুষ্ঠানের জন্য মহিলারা শাড়ি নিয়ে আসেন। তবে সকালে, একটি যোগ বিজ্ঞান শিবিরের আয়োজন করা হয়েছিল, তারপরে মহিলাদের জন্য একটি যোগ প্রশিক্ষণ প্রোগ্রামের আয়োজন করা হয়েছিল। এরপরই শুরু হয় মহিলাদের সাধারণ সভা, যে কারণে তারা শাড়ি পরার সময় পাননি।



বাবা রামদেব এ নিয়ে বিবৃতি দিতে গিয়ে বলেন, 'একটির পর একটি অনুষ্ঠান শুরু হয়ে যাওয়ায় শাড়ি পরার সময় পাননি কেউ কেউ। তবে, এতে কিছু যায়-আসে না। এখন বাড়িতে গিয়ে শাড়ি পরুন। পাশাপাশি রামদেব আরও বলেন, “মহিলাদের শাড়িতে সুন্দর দেখায়, মহিলারা সালোয়ার স্যুটে সুন্দর দেখায় এবং আমার দৃষ্টিতে তো, কেউ না পরলেও সুন্দর দেখায়।' উল্লেখ্য, এই ধরনের বিবৃতি দিয়ে তিনি প্রথমবার শিরোনামে আসেননি, এর আগেও তিনি অনেক বিষয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন।


রামদেব যখন এদিন মহিলাদের পোশাক নিয়ে এই বিবৃতি দেনন, তখন তাঁর সঙ্গে ছিলেন থানে শিবসেনার সাংসদ শ্রীকান্ত শিন্ডে, মুখ্যমন্ত্রী একনাথ শিন্ডের ছেলে এবং ভারতীয় জনতা পার্টির উপ-মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশের স্ত্রী অমৃতা ফড়নবিস এবং অন্যান্য বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।



এই অনুষ্ঠানে যোগগুরু বাবা রামদেব, অমৃতা ফড়নবিসের ভুয়োসী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, 'অমৃতা ফড়নবীস তরুণ থাকতে এতটাই আচ্ছন্ন যে আমি মনে করি তিনি কখনই ১০০ বছরের বৃদ্ধ মহিলা হবেন না। কেননা তিনি অনেক হিসেব করে খাবার খান এবং খুশি থাকেন। রামদেব বলেন, 'আপনি যখনই দেখবেন, তিনি শিশুর মতো হাসতে থাকেন। অমৃতা ফড়নবিসের মুখে যে ধরনের হাসি, আমি সবার মুখে একই রকম আনন্দ দেখতে চাই।'


এদিকে, রামদেবের এই বক্তব্যের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁকে ট্রোল করছে মানুষ। লোকেরা রামদেবকে সেই ঘটনার কথা মনে করিয়ে দেন, যখন দিল্লীতে পুলিশের হাত থেকে বাঁচতে সালোয়ার ও কুর্তা পরে মঞ্চ থেকে পালানোর চেষ্টা করেছিলেন তিনি। কেউ কেউ ক্ষোভও উগরে দিয়েছেন।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad