মমতা 'ভারত জোড়ো যাত্রা' নিয়ে নীরবতা পালন করেছেন, কারণ মোদীজি রেগে যাবেন - অধীর রঞ্জন - press card news

Breaking

Post Top Ad

Post Top Ad

Sunday, 22 January 2023

মমতা 'ভারত জোড়ো যাত্রা' নিয়ে নীরবতা পালন করেছেন, কারণ মোদীজি রেগে যাবেন - অধীর রঞ্জন

 


 মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীব্র আক্রমণ পশ্চিমবঙ্গ কংগ্রেস সভাপতি তথা সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরীর।  এএনআই নিউজ অনুসারে, অধীর রঞ্জন চৌধুরী শিলিগুড়িতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটূক্তি করার সময় বলেন যে "মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভারত জোড়ো যাত্রায় কিছু বলেননি কারণ মোদীজি রেগে যাবেন।  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মোদীজির মধ্যে মো-মো বোঝাপড়া আছে, যখন মোদীজি বলেন, ভারত 'কংগ্রেস মুক্ত', মমতাজিও বলেন যে বাংলা থেকে কংগ্রেসকে সরিয়ে দিতে হবে।" উল্লেখ্য, রাহুল গান্ধীর ভারত জোড়ো যাত্রার আদলে, অধীর রঞ্জন চৌধুরীর নেতৃত্বে, বাংলায় একটি 'সাগর সে পাহাড়' যাত্রার আয়োজন করা হয়েছে।


 

 কংগ্রেস তৃণমূল কংগ্রেস সহ বিরোধী নেতাদের ভারত জোড়ো যাত্রায় যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিল, কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেস পুরো বিষয়টিতে নীরবতা পালন করেছিল।  তবে, বাংলায় 'সমুদ্র থেকে পর্বত' যাত্রার শেষ দিনে, বাম নেতারা এই কর্মসূচিতে অংশ নেবেন বলে আশা করা হচ্ছে।



 শিলিগুড়ির বাঘাযতীন ময়দানে তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপিকে কটাক্ষ করেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী।  তিনি বলেন, "নির্বাচনের সময়ই উত্তরবঙ্গের কথা সবার মনে পড়ে।"  মমতা সরকারকে নিশানা করে অধীর বলেন, গত ১০ বছরে উত্তরবঙ্গের কথা মনে পড়েনি।  নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে উত্তরবঙ্গের উন্নয়ন নিয়ে উত্তেজনা ততই বাড়ছে।  অধীর দাবী করেন, উত্তরবঙ্গের অর্থনীতি যে পর্যটন শিল্পের ওপর ভর করে।  আস্তে আস্তে শিথিল হয়ে আসছে তার হাতের মুঠি।  তাঁর মতে, এতদিন দার্জিলিং পর্যটকদের প্রিয় গন্তব্য ছিল, কিন্তু আজকাল দার্জিলিং-এর চেয়ে সিকিমের গ্যাংটকে পর্যটকদের সংখ্যা বেশি।  তিনি পাহাড়ি পর্যটনের প্রতি সরকারের উদাসীনতাকে দায়ী করেন।



অধীর বর্তমানে রাজ্যে বিরাজমান বিজেপি সম্পর্কে সাধারণ মানুষকে সতর্ক করেছেন।  বিভাজনের রাজনীতি ছাড়া বিজেপির কোনও অস্তিত্ব নেই বলেও দাবী করেন তিনি।  লোকসভায় কংগ্রেস নেতা এককভাবে পেট্রোল এবং ডিজেলের দামের লাগামহীন বৃদ্ধির জন্য কেন্দ্রকে নিন্দা করেছেন।  বাংলায় শিক্ষক নিয়োগ কেলেঙ্কারিতে কুন্তল ঘোষের গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে অধীর বলেন যে তিনি অর্থ নিয়েছেন এবং সরকারের সরাসরি সহযোগিতায় তা খেয়েছেন।  রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তাঁর দল তৃণমূল কংগ্রেসের সমর্থনে এই চুক্তি চলছে।  এই শিক্ষাক্ষেত্রে দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত বিশিষ্ট ব্যবসায়ীরা যাতে ধরা না পড়ে সেজন্য কেন্দ্রে মোদী এবং রাজ্যে মমতা চুক্তি করেছেন। হুগলি তৃণমূল যুব কংগ্রেসের নেতা কুন্তল ঘোষকে দীর্ঘ ২৪ ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদের পর শনিবার গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

No comments:

Post a Comment

Post Top Ad